• প্রচ্ছদ » » দুর্বৃত্তায়ন বন্ধ না করে ছাত্র রাজনীতিকে বন্ধ করলে সমস্যার সমাধান কীভাবে হবে?


দুর্বৃত্তায়ন বন্ধ না করে ছাত্র রাজনীতিকে বন্ধ করলে সমস্যার সমাধান কীভাবে হবে?

আমাদের নতুন সময় : 09/10/2019

আহমেদ শরিফ শুভ : কই কেউ তো যুবরাজনীতি, শ্রমিক রাজনীতি এমনকি জাতীয় রাজনীতি বন্ধের কথা বলছেন না। শুধু বলছেন ছাত্র রাজনীতি বন্ধের কথা। আমাদের এই মায়োপিক চিন্তাধারাই রাজনীতির সামগ্রিক স্খলনের কারণ। পায়ে ইনফেকশন হলে যারা এন্টিবায়োটিক দিয়ে চিকিৎসা না করে পুরো পা কেটে ফেলার মতো অবৈজ্ঞাঙ্ক চিন্তা করতে পারেন তারাই ছাত্ররাজনীতি বন্ধের মধ্যে চলমান সমস্যার সমাধান দেখেন। বন্ধুরা, সমস্যাটি ছাত্র রাজনীতির নয়, সমস্যাটি ছাত্র রাজনীতি তথা সমগ্র রাজনীতির বিরাজনীতিকরণের সমস্যা। ছাত্র রাজনীতি তো জাতীয় রাজনীতিরই বাইপ্রোডাক্ট। যেখানে রাজনীতির সামগ্রিক দুর্বৃত্তায়ন হয়েছে সেখানে ছাত্র রাজনীতি তার বাইরে থাকে কি করে? আর সামগ্রিক রাজনীতির সংস্কার না করে, দুর্বৃত্তায়ন বন্ধ না করে ছাত্র রাজনীতিকে বন্ধ করলে সমস্যার সমাধান কীভাবে হবে? তার চেয়ে সুষ্ঠু ছাত্র রাজনীতি ফিরিয়ে দিতে বলুন, ছাত্র সংগঠনের উপর রাজনৈতিক দলগুলোর আধিপত্য খর্ব করতে বলুন (ছাত্র সংগঠনগুলো আগে ছিলো সহযোগী সংগঠন, এখন কার্যত অঙ্গ সংগঠন)। ছাত্র সংগঠনগুলোতে কোনো কাউন্সিল হয় না বছরের পর বছর। হলেও নেতৃত্ব চাপিয়ে দেয়া হয় উপর থেকে। ছাত্র সংগঠনগুলো নেতারা এখন স্ব স্ব মাতৃ সংগঠনের কর্মচারী মাত্র। বুয়েটের যে ছাত্রটিকে হত্যা করা হলো সে কি কোনো ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মী ছিলো কিনা তা আমার জানা নেই। তবে একটি প্রশ্ন আছে। ধরে নিন, ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ। তাহলে কি এটা ধরে নেবেন ছাত্ররা জাতীয় স্বার্থ সংশ্লিষ্ট কোনো বিষয়েই ব্যক্তিগতভাবে হলেও তাদের মতামত দেবে না? এই নিশ্চয়তা দিতে পারেন? আর সেই মতামত অন্য কারও কাছে গ্রহণযোগ্য না হলে কিংবা সে যদি কোনো রাজনৈতিক নেতার ক্যাডার হয় তবে সেই ভিন্নমতের ছাত্রটিকে আক্রমণ করবে নাÑ সেই নিশ্চয়তা দিতে পারবেন? সমস্যাটি ছাত্র রাজনীতির নাকি রাজনীতির বিরাজনীতিকরণের? ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করলে রাজনৈতিক নেতৃত্ব বিকাশের চর্চা কীভাবে হবে? যদি চান পুরো রাজনীতি বন্ধ হয়ে যাক, কিংবা ভ‚মিদস্যু, রাজনীতি বিযুক্ত ব্যবসায়ী আর অবসরপ্রাপ্ত আমলারা রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করুক তাহলে ভিন্ন কথা। ছাত্র রাজনীতির এই অশান্ত সময়ে সেসব কায়েমী স্বার্থবাদী মহলই ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করার ¯েøাগানে পুলকিত হবে, ঘোলা পানিতে শিকারে নামবে। কারণ সুষ্ঠু ছাত্র রাজনীতি তাদের লুটপাটের অন্তরায়। আমাদের সমাজের প্রায় সর্বাংশেই পচন ধরেছে। সামান্য যেটুকু বাকি আছে তা ছাত্রদের মধ্যেই। আপনারা সেই ছাত্রদের রাজনীতি বন্ধ করতে বলছেন। অথচ যুব রাজনীতি, শ্রমিক রাজনীতি কিংবা পেশাজীবীদের অপরাজনীতিতে আপনাদের আপত্তি দেখছি না। পায়ে ইনফেকশন হলে এন্টিবায়োটিক দিন। পা কেটে ফেললে কিন্তু হাঁটতে পারবেন না। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]