মহাবিশ্বের অজানা তথ্য আবিস্কার করে পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পেলেন ৩ বিজ্ঞানী

আমাদের নতুন সময় : 09/10/2019

আসিফুজ্জামান পৃথিল : ২০১৯ সালে পদার্থবিদ্যায় নোবেল পুরস্কার পেলেন ৩ জন। পুরস্কারের অর্ধেক পাবেন মার্কিন-কানাডিয়ান বিজ্ঞানী জেমস পিবলস। বার্কি অর্ধেক পুরস্কার পাবেন দুই সুইস বিজ্ঞানী মিচেল মেয়র এবং দিদিয়ের কুইলোজ। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে এ কথা জানিয়েছে নোবেল কমিটি। পিবলস পুরস্কার পাচ্ছেন পার্থিব মহাজগৎ বিদ্যায় তত্ত্বিয় আবিস্কারের জন্য। আর বাকি দুজন পাবেন সূর্যের মতো নক্ষত্রের পাশে আবর্তনকারী একটি এক্সোপ্লানেট আবিস্কারের জন্য। এই ৩ জনের হাত ধরেই এক্সোপ্লানেট আবিস্কার শুরু হয়। এরপর হাজারো এক্সোপ্লানেট বা সুপার আর্থ আবিস্কার করেছেন জ্যোতিবিজ্ঞানীরা। আমরা আমাদের সৌরজগতের বাইরে প্রায় কিছুই জানতাম না। কিন্তু এখন আমরা শুধু আমাদের নিজস্ব ছায়াপথ মিল্কিওয়ে সম্পর্কে জানি তাইই নয়, আমরা পুরো মহাবিশ^ সম্পর্কেই নতুন ধারণা পাই। মহাকাশ হবেষণার ক্ষেত্রে এই ৩ বিজ্ঞানীর অবদান কখনই অস্বীকার করা যাবে না। ২ দশকের বেশি সময় ধরে একটি তাত্ত্বিক অবকাঠামো তৈরী করেছেন পিবলস। এর ফলে আমরা আমাদের মহাবিশে^র ইতিহাস সম্পর্কে অবগত হয়েছি। যে ইতিহাস শুরু হয়েছিলো বিগ ব্যাঙের সময় থেকে।
আর ১৯৯৫ সালে মিচেল মেয়র আর দিদিয়ের কুইলোজ সৌরজগতের বাইরে প্রথম একটি গ্রহ আবিস্কার করেন। এই এক্সোপ্লানেটটি সূর্যের মতোই এক নক্ষত্র ৫১ পেগাসিকে কেন্দ্র করে আবর্তন করছে। পুরস্কার পেয়ে পিবলস রয়েল সুইডিশ অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেস কে বলেন, ‘আমাদের এখনও স্বীকার করতে হচ্ছে কৃষ্ণবস্তু আর কৃষ্ণশক্তি খুবই রহস্যময়। এখনও আমাদের অনেক প্রশ্নের উত্তর পাওয়া বাকি। এই কৃষ্ণবস্তু কি? অন্য গ্রহে প্রাণের অস্তিত্ব আছে কি?’ সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]