শি জিনপিংকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত চেন্নাই

আমাদের নতুন সময় : 10/10/2019

 

নূর মাজিদ : ৭ম খৃষ্টাব্দে পল¬ব রাজ্যের রাজধানী ছিলো চেন্নাইয়ের অদূরে অবস্থিত মামালাপুরাম বা মহাবলিপুরাম। ঐতিহাসিক হিন্দু মন্দিরের জন্য জাতিসংঘ একে বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ ঘোষণা করেছে। চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে ভারতীয় নরেন্দ্র মোদীর দ্বিতীয় অনানুষ্ঠানিক সম্মেলনটাও হচ্ছে বঙ্গোপাসাগর তীরবর্তী চেন্নাইয়ের এই ঐতিহাসিক শহরতলীতে। দুই দিন ব্যাপী এই সম্মেলন শেষ হবে আগামীকাল ১২ অক্টোবর। এই উপলক্ষেই চেন্নাইয়ে কড়া নিরাপত্তা আর সৌন্দর্যবর্ধনের উদ্যোগ নিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। খবর : ইকোনমিক টাইমস, হিন্দুস্তান টাইমস।
ভারতের সঙ্গে চীনের ৩ হাজার ৮শ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমানা রয়েছে। এই সীমান্তের অনেক অংশ নিয়েই দ্বিপাক্ষিক বিরোধ বিদ্যমান। ২০১৮ সালে ভূটানের ডোকলামে অবশ্য ভিনদেশের হয়েই চীনা সীমান্তরক্ষীদের সঙ্গে হাতাহাতি হয় ভারতীয় সেনাদের। পরবর্তীতে ওই বিরোধ বড় ধরনের সংঘাত জন্ম দেবে, এমন আশংকা থেকেই চীনের উহানে শি জিনপিং এবং নরেন্দ্র মোদীর মাঝে প্রথম অনানুষ্ঠানিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সেবছরের সম্মেলনে সীমানা সংঘাতের চাইতেও অবশ্য বেশি প্রাধান্য পায় সন্ত্রাসবাদ দমনে দ্বিপাক্ষিক কৌশল এবং বাণিজ্যিক স¤পর্ক মজবুতের আলোচনা। তবে সাম্প্রতিক সময়ে কাশ্মীর ইস্যুতে জাতিসংঘে পাকিস্তানকে দেয়া চীনের সমর্থনের প্রেক্ষিতে এবারের মহাবলিপুরম সম্মেলনে শি-মোদী আলোচনায় সীমান্ত বিরোধ নিরসনের দিকেই গুরুত্ব দেবে ভারত। দেশটির শীর্ষ কূটনৈতিক কর্মকর্তারা স্থানীয় গণমাধ্যমকে এমন ইঙ্গিতই দিয়েছেন।
এদিকে সম্মেলনের আগে অরূণাচল প্রদেশে একটি সামরিক মহড়া স্থগিত করেছে ভারত। যাকে স্বাগত জানিয়েছে চীন। দেশটির উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী লু ঝাওহুয়েই বলেন, অরূণাচলের বিতর্কিত পূর্বাঞ্চলে একটি বড় সামরিক মহড়া অনুষ্ঠানের কথা ছিল ভারতের। তবে যেহেতু এই মহড়ার খবর সঠিক নয়, তাই আমাদের উদ্বেগের কোন কারণ নেই। শি জিনপিংয়ের ভারত সফর ঘোষণার সময় এক গণমাধ্যমকর্মীর প্রশ্নের জবাবে তিনি এমন কথা বলেন। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]