• প্রচ্ছদ » » বিশ্বসাহিত্যের সমসাময়িক লেখকদের সম্পর্কে খোঁজখবর না রাখাটা একজন লেখকের শুধু দুর্বলতা নয়, ক্রাইম


বিশ্বসাহিত্যের সমসাময়িক লেখকদের সম্পর্কে খোঁজখবর না রাখাটা একজন লেখকের শুধু দুর্বলতা নয়, ক্রাইম

আমাদের নতুন সময় : 12/10/2019

সোয়েব সর্বনাম : বিশ্বসাহিত্যের সমসাময়িক লেখকদের সম্পর্কে খোঁজখবর না রাখাটা একজন লেখকের শুধু দুর্বলতা নয়, ক্রাইম। এই গুগল ইন্টারনেটের যুগে দুনিয়ার কোথায় কী কাজ হচ্ছে সেগুলা জেনে ফেলাটা খুব কঠিন বিষয় না। রবীন্দ্রনাথ ইতালি থেকে ফেরার পর নজরুল বেশ কয়েকজন ইতালির কবির নাম ধরে তাদের খোঁজখবর জানতে চাইছিলেন। সেই আমলে নজরুল এদের খোঁজ কই পাইলেন এইটা এখনো আমারে বিস্মিত করে। তিরিশের দশকেও বিশ্বসাহিত্য সম্পর্কে জীবনানন্দ বা বুদ্ধদেব বসুর বোঝাপড়া ছিল ঈর্ষণীয়। আজকে ফেসবুকে কিছু সাহিত্যিক গর্বের সাথে পোস্ট দিতেছেন, নোবেল পুরষ্কারপ্রাপ্ত কারও লেখা তারা পড়েন নাই। কেউ কেউ জীবনে তাদের নামও শুনেন নাই। নোবেল পুরস্কার পাওয়া না পাওয়া দিয়া সাহিত্যের কিছু যায় আসে না। কিন্তু বিশ্বসাহিত্যের এতো বড় প্লাটফর্মে যারা নিজেদের সাহিত্যের গুণে হাজির আছেন, তাদের খবর না রাখাটা সাহিত্যিক হিসেবে লজ্জার। এ বছর যারা নোবেল পাইলেন, তাদের একজন গতবছর বুকার প্রাইজ পাইছেন। আরেকজন বেশ কয়েকবছর যাবৎই বিশ্বের সকল পত্রপত্রিকার করা নোবেল শর্টলিস্টে আছেন। তাদের কারও লেখা আমি পড়ি নাই- এই কথা বড় গলায় ফেসবুকে বলে বেড়ানোর মতো নির্লজ্জতা বাংলাদেশের সাহিত্যের লোকেদের পক্ষেই সম্ভব। তারা নিজেদের ছাড়া দুনিয়ায় আর কোনো লেখক আছে বলে মনে করেন না। এই দেশে তারাই সাহিত্যিক। নিন্দা। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]