টেকসই প্রযুক্তি উদ্ভাবনে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে স্বীকৃতি দিবে সরকার

আমাদের নতুন সময় : 13/10/2019

আনিস তপন : নতুন ও টেকসই প্রকৌশল প্রযুক্তি উদ্ভাবনকারী ব্যক্তি ও সংস্থাকে জাতীয়ভাবে স্বীকৃতি ও পুরস্কার দেয়ার লক্ষ্যে ‘বাংলাদেশ প্রকৌশল গবেষণা কাউন্সিল আইন, ২০১৯’ এর খসড়া চূড়ান্ত করেছে সরকার। যা অনুমোদনের জন্য মন্ত্রিসভা বৈঠকে পাঠিয়েছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আজ অনুষ্ঠেয় মন্ত্রিসভা বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
খসড়ায় এ সংক্রান্ত বিষয়ে বলা হয়েছে, বিভিন্ন প্রকৌশল প্রতিষ্ঠানের গবেষণা কাজগুলোর মধ্যে সমন্বয় সাধন, গবেষণায় পাওয়া ফলাফল বাণিজ্যিকীকরণসহ আমদানি করা প্রযুক্তি গস্খহণ, আত্তীকরণ ও অভিযোজন করার জন্য প্রকৌশল প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সম্পর্ক স্থাপনের লক্ষ্যে একটি প্রকৌশল কাউন্সিল গঠনের লক্ষ্যে এই আইনের প্রয়োজন রয়েছে।
এ কাউন্সিল জাতীয় প্রয়োজন অনুসারে প্রকৌশল বিজ্ঞানের যেমন- পূর্ত, যান্ত্রিক ও বৈদ্যুতিকসহ সকল প্রকার অবকাঠামো, যন্ত্রপাতি, প্ল্যান্ট, ডিভাইস এবং মালামালের নকশা প্রণয়ন, নির্মাণ, উৎপাদন, পরিচালনা, রক্ষণাবেক্ষণের পাশাপাশি গুণগত মান নির্ধারণ করবে। টেকসই জাতীয় উন্নয়ন নিশ্চিত করার জন্য শিল্প, শক্তি, কৃষি, খনিজ সম্পদ, পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনা, স্বাস্থ্য, পরিবেশ, পরিবহণ ও সেবাসহ প্রকৌশলের সব সেক্টরে পরিবেশবান্ধব ও জলবায়ু পরিবর্তন সহনীয় প্রযুক্তি ও প্রকৌশল বিদ্যার কার্যকর প্রয়োগ নিশ্চিত করার পাশাপাশি গবেষণার মাধ্যমে দেশে উদ্ভাবিত প্রকৌশল পদ্ধতি প্রয়োগ করে দেশের উন্নয়নসহ প্রযুক্তি উদ্ভাবন, অভিযোজন, হস্তান্তর ও আত্তীকরণে উৎসাহিত করবে। এছাড়া কাউন্সিল প্রকৌশল বিষয়ক সরকারি, বেসরকারি ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ের গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেও নিবিড় সম্পর্ক রাখবে বলা হয়েছে খসড়াতে।
কাউন্সিল পরিচালনায় ৬ সদস্য বিশিষ্ট একটি গভর্নিং বডি থাকবে। কাউন্সিলের প্রধান নির্বাহী হবেন চেয়ারম্যান। গভর্নিং বডির মেয়াদ হবে তিন বছর। উপসচিব বা সমপদমর্যাদার কোনো ব্যক্তিকে সরকার কাউন্সিলের সচিব হিসেবে নিয়োগ দিবেন। তাছাড়া কাউন্সিলের একটি উপদেষ্টা পরিষদও থাকবে। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রীকে প্রধান করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট এই উপদেষ্টা পরিষদ গঠনের কথা বলা হয়েছে আইনের খসড়ায়। একই সঙ্গে কাউন্সিলের কাজ সুচারুরূপে সম্পাদন, গবেষণা কাজ পরিচালনা বা এ সংক্রান্ত বিষয়ে পরামর্শ, সুপারিশ বা সহায়তা দেয়ার জন্য আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন বাংলাদেশি বা প্রবাসী বাংলাদেশি বিজ্ঞানী, প্রকৌশলী, পেষাজীবী, শিল্প উদ্যোক্তা বা শিক্ষাবিদের সমন্বয়ে একটি বিশেষজ্ঞ প্যানেল গঠন করতে পারবে।
সরকারের দেয়া মঞ্জুরি বা অনুদান, বিদেশি কোনো ব্যক্তি, সরকার বা সংস্থা বা আন্তর্জাতিক কোনো সংস্থা থেকে অনুদান বা ঋণ, গবেষণাস্বত্ব ও সেবা হতে আয়, কোনো ব্যক্তি বা কর্তৃপক্ষের দেয়া অনুদান, কাউন্সিলের বিনিয়োগ থেকে প্রাপ্ত মুনাফা ও সম্পদ থেকে উদ্বৃত্ত আয় দিয়ে এর তহবিল গঠনের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে খসড়াতে। সম্পাদনা : রমাপ্রসাদ বাবু




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]