• প্রচ্ছদ » সর্বশেষ » ফোর-জি সেবায় ব্যর্থ হলেও চালকবিহীন গাড়ি চালাতে ফাইভ-জি আনছে টেলিটক


ফোর-জি সেবায় ব্যর্থ হলেও চালকবিহীন গাড়ি চালাতে ফাইভ-জি আনছে টেলিটক

আমাদের নতুন সময় : 13/10/2019


মো. আখতারুজ্জামান : গ্রাহকদের কাঙ্খিত সেবা দিতে ব্যর্থ হয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত মালিকানাধীন মোবাইল অপারেটর কোম্পানি টেলিটক। এমন তথ্য ওঠে এসেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) এক প্রতিবেদনে। এ বছরের জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারিতে খুলনা, রাজশাহী, বরিশাল ও রংপুরে মোবাইল ইন্টারনেটের গতি পরীক্ষা করে তারা এ ফল প্রকাশ করে। বিভাগীয় ও জেলা শহরের পাশাপাশি ঢাকাতেও কাঙ্খিত গতির ইন্টারনেট সেবা দিতে পারেনি সরকারি এ প্রতিষ্ঠানটি। এ অবস্থায় দেশে ফাইভ-জি প্রবর্তনের প্রস্তুতি শুরু করেছে টেলিটক। বিটিআরসি সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
বিটিআরসির পক্ষ থেকে ফাইভ-জি প্রযুক্তির বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বলা হয়েছে, টেলিটক ফাইভ-জি মোবাইল নেটওয়ার্ক ব্যবহারকারীদের মধ্যে অনেকটা নতুন পরিবর্তন আসবে। ফাইভ-জি ড্রোনের মাধ্যমে গবেষণা এবং উদ্ধার কাজ ও অগ্নিনির্বাপণে সহায়তা করবে। সেই সঙ্গে চালকবিহীন গাড়ি, লাইভ ম্যাপ এবং ট্রাফিক তথ্যের জন্যও ফাইভ-জি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠবে। মোবাইল গেমাররা আরো বেশি সুবিধা পাবেন। ভিডিও কল আরো পরিষ্কার হবে। কোনোরকম বাধা ছাড়াই মোবাইলে ভিডিও দেখা যাবে। শরীরে লাগানো ফিটনেস ডিভাইসগুলো নিখুঁত সময়ে সংকেত এবং জরুরিভাবে চিকিৎসা বার্তাও পাঠাতে পারবে।
জানুয়ারিতে তৈরি করা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ে টেলিটকের পাশাপাশি অন্য সব অপারেটরও ঢাকার বাইরে কাঙ্খিত মানের ফোর-জি সেবা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। রাজধানীর বাইরে এখনো ফোর-জি চালু না করায় টেলিটককে হিসাবের বাইরে রেখেই প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে।
গ্রামীণফোন, রবি ও বাংলা লিংকের ফোর-জি সেবার মান সম্পর্কে বলা হয়েছে, মোবাইল ইন্টারনেটের সর্বনিম্ন গতি হওয়ার কথা সাত এমবিপিএস। কিন্তু এদের কেউই এ গতিতে সেবা দিতে পারছে না। কিছু কিছু ক্ষেত্রে অর্ধেক গতি পেয়েছে বিটিআরসি।
সূত্র জানায়, ফাইভ-জি নেটওয়ার্ক চালু করতে বিটিআরসি তথ্য চেয়ে সংশ্লিষ্ট কয়েকটি মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছে। ফাইভ-জি সেবা প্রবর্তনের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে পূর্ণাঙ্গ প্রস্তাবনা ও নীতিমালা প্রণয়নের নিমিত্ত সরকারের প্রতিনিধি, টেলিযোগাযোগ সেক্টরের নিয়ন্ত্রক সংস্থা, বিশ্ববিদ্যালয়, আর্মড ফোর্সেস ডিভিশন এবং অপারেটরদের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে গত এপ্রিলে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী ফাইভ-জি সেবা চালু এবং প্রদান করার জন্য ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, সরকারের সব মন্ত্রণালয় বা বিভাগের অধীনস্থ সব দপ্তর বা সংস্থাগুলোর সহায়তা প্রয়োজন। এ লক্ষ্যে সব প্রতিনিধি ৩০ অক্টোবরের মধ্যে বিটিআরসিকে তাদের মতামত জানাবে। সম্পাদনা : রমাপ্রসাদ বাবু




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]