• প্রচ্ছদ » » আইএস তুরস্ক থেকে ট্রেনিং নিয়ে সিরিয়া-ইরাক দখল করতে গিয়েছিলো?


আইএস তুরস্ক থেকে ট্রেনিং নিয়ে সিরিয়া-ইরাক দখল করতে গিয়েছিলো?

আমাদের নতুন সময় : 18/10/2019

মাহফুজুর রহমান

সিরিয়া এতো বছর ধরে লড়াই করেছিলো আইএস ও ফ্রি সিরিয়ান আর্মির বিরুদ্ধে। এরা সিরিয়ার উত্তরাঞ্চল শহর মানবিচ, ইদলিব আলেপ্পো ইত্যাদি, যা তুরস্কের সীমান্তের সন্নিকটে। সবাই জানে যে এই তুরস্কের মাধ্যমেই আমেরিকার নির্দেশে ইউরোপ থেকে প্রতিদিন একশ ট্রাক করে রসদ আইএসদের কাছে পৌঁছে দেয়া হতো। কেউ কি দেখেছেন যে, আইএস মিলিশিয়ারা তুরস্ক দখল করতে গেছে? লেবালনেও যায়নি। যাবে কেন? আইএস তো তুরস্ক থেকেই ট্রেনিং নিয়ে সিরিয়া-ইরাক দখল করতে গিয়েছিলো? পরে আসাদ সরকার রাশিয়া ও ইরানের সঙ্গে ভাও বাট্টা করে আইএসদের সাইজ করে তুর্কি সীমান্তের দিকে ঠেলে দেয়। এরপর আমেরিকা নানা চাপে পড়ে আইএসকে ধ্বংস করার নামে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে তুরস্কের সহায়তায় সেনা নামিয়েছিলো। কিন্তু তারা আইএস মিলিশিয়াদের প্রোটেকশন দিতে শুরু করে পরে রাশিয়া ইরান প্রত্যক্ষ তাদের বিরুদ্ধে জড়িত হলে আমেরিকা তখন আইএস নিধনে আসে। তবে যখন কুলিয়ে উঠতে পারলো না তখন কুর্দিদের সহযোগিতা নিয়ে আইএসকে প্রায় কোণঠাসা করে দিলো। আমেরিকা নিজে যখন পারলো না তখন তুরস্ককে দিয়ে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলের তেল-গ্যাস ক্ষেত্রগুলোর দখল নিতে মরিয়া, অবশ্য এতোদিন আইএস দিয়ে দখল করিয়ে তেল-গ্যাস পুরোদস্তুর চুরি করেছে। তাই এখন আমেরিকা তুরস্ককে দিয়ে শরণার্থী পুনর্বাসনের নামে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চল দখল করে তেল-গ্যাস লুটপাট করতে চাইছে। তাই নিজেদের সেনা প্রত্যাহার করে তুরস্ককে কুর্দিদের দমনের নামে সুযোগ করে দিলো। এবার কুর্দিরা রাশিয়ার মধ্যস্থতায় আসাদ সরকারের সঙ্গে চুক্তি করে নিজেদের দখলকৃত অঞ্চল সিরিয়ার অনুক‚লে ছেড়ে দিয়ে দুইয়ে মিলেই তুরস্ককে ঠেকাইতে মুখামুখি হয়েছে।
২. তুরস্কের সাথে যেন কুর্দি ও সিরিয়ান সৈন্যরা বড় কোন সংঘাতে জড়িয়ে না পড়ে তাই মানবিচ শহরটির নিয়ন্ত্রন নিয়েছে রাশিয়ার সৈন্যরা । অবশ্য কুর্দি ও সিরিয়ান সৈন্যরাও সেখানে টহল দিচ্ছে। এখন সিরিয়া ও কুর্দিরা ইদলিবের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। আসাদের টার্গেট কুর্দিদের সহযোগিতায় সিরিয়ার পুরো ভুমি দখলে নেওয়া। তবে এটাও সত্য যে কুর্দি বাহিনী ছাড়া আসাদ বাহিনীর ক্ষমতাও ছিলনা আই এস ও ফ্রী সিরিয়ান আর্মিদের হাত থেকে এই শহর গুলি উদ্ধার করা। যাই হোক তুর্কী সেনাদের পরাস্ত করতে কুর্দিরা নিজেদের স্বায়ত্তশাসনের দাবি থেকে সরে গিয়ে আসাদ বাহিনীকে সহযোগিতা করছে। আসাদ সরকারের উৎখাতের জন্যে ফ্রি সিরিয়ান আর্মি ও আই এস যোদ্ধাদের এতদিন সমরাস্ত্র সাপ্লাই দিয়াও সুবিধা হচ্ছিলনা তখন এরোদগান নিজেই সৈন্য পাঠিয়ে বাকি কাম করা শুরু করল। ওদিকে পুতিন তুরস্ককে এস- ৪০০ সাপ্লাই দিয়াও নানান দোটানা শরমে আছেন! তাই বড় কোন সংঘর্ষ না হয় তাই মধ্যস্থতা কারির ভুমিকায় আছেন। কিন্তু সিরিয়ার সাথে মস্কোর বন্ধুত্ব অনেক পুরানো, প্রেসিডেন্ট আসাদের বাবার আমল থেকেই। আরেকটি কথা, মানবিচ, ইদলিব ও অন্যান্য সমৃদ্ধ শহর থেকে আই এস ও ফ্রি সিরিয়ান আর্মিদের হঠাইতে সিরিয়া ও রাশিয়া যখন পারেইনি তখনই কুর্দিদের সাথে নিয়ে এই অগ্রসর হওয়া। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]