শরীয়তপুরে দুই বস্তা মা ইলিশসহ আটকের পর তিন পুলিশ সদস্য সাময়িক বরখাস্ত

আমাদের নতুন সময় : 18/10/2019

শাহিন : জেলা পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন বুধবার রাতে সাময়িক বরখাস্তের আদেশে স্বাক্ষর করেন বলে জানা গেছে। সাময়িক বরখাস্ত আদেশপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্যরা হলেন- শরীয়তপুর পুলিশ লাইন্সের মোটরযান বিভাগে দায়িত্বরত এসআই মন্টু মিয়া, কনেস্টবল হৃদয় ও সনজিত।
জানা যায়, বুধবার রাত ১১টার পর থেকে পুলিশ লাইন্স সংলগ্ন পানি উন্নয়ন বোর্ড সড়ক দিয়ে কয়েকজন পুলিশ সদস্য মা ইলিশ বহন করে নিয়ে যাচ্ছিল। এসময় তাদের গতিরোধ করে ২টি মোটরসাইকেলে থাকা ২টি বস্তাভর্তি অন্তত দুইশ ইলিশ মাছসহ পুলিশের ৩ সদস্যকে আটক করে স্থানীয়রা। এসময় অপর ২ মোটরসাইকেলসহ বাকি সদস্যরা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে জেলা প্রশাসন এবং পুলিশ প্রশাসনের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যান। তখন পুলিশ লাইন্সের আবাসিক পুলিশ পরিদর্শক অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যদের জিম্মায় গ্রহণ করে পুলিশ লাইন্সে নিয়ে যায়। পুলিশ লাইন্সে বসেই অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যদের বরখাস্তের আদেশে স্বাক্ষর করেন পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন। সেখান থেকে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহাবুর রহমান শেখ মা ইলিশ জব্দ করে বিভিন্ন এতিমখানায় বিলিয়ে দেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল মামুন শিকদার, পুলিশ সুপার কার্যালয়ের ডিআইও-১ আজাহারুল ইসলাম ও পালং থানার ওসি মো. আসলাম উদ্দিন প্রমূখ। পুলিশ কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতেই বরখাস্ত হওয়া এসআই মন্টু মিয়ার কাছ থেকে টিআই জামাল মীরকে মোটরযান শাখার দায়িত্ব বুঝে নিতে নির্দেশ করেন পুলিশ সুপার।
এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন বলেন, যারা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করেছে তাদের পুলিশে চাকরি করার যোগ্যতা নেই। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা হয়েছে। তারা যেন ৬০ কার্য দিবসের মধ্যে বাড়ি চলে যেতে পারে সেই ব্যবস্থাও করা হবে। সম্পাদনা : মুরাদ হাসান/টিএম হুদা, ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]