• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » কৃষিকে লাভজনক করতে না পারলে এ পেশায় লোকজন থাকবে না, বললেন কৃষির অতিরিক্ত সচিব


কৃষিকে লাভজনক করতে না পারলে এ পেশায় লোকজন থাকবে না, বললেন কৃষির অতিরিক্ত সচিব

আমাদের নতুন সময় : 19/10/2019

 

মতিনুজ্জামান মিটু : লাভজনক করতে হলে কৃষিতে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। এজন্য সরকার, বিদেশ পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশীপ, এনজিওদের ফান্ড দিতে হবে। এসডিজির লক্ষ্য পুরণে ২০৩০ সালের মধ্যে কৃষকের আয় ২০১৫ সালের চেয়ে দ্বিগুণ করতে হবে। গতকাল রাজধানীর ফার্মগেটের খামারবাড়ি সড়কের কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট বাংলাদেশের(কেআইবি) থ্রী ডি হলে কৃষি মন্ত্রণালয় ও জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার বিশ্ব খাদ্য দিবসের ৩ দিনের মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (পিপিসি) ড. মো. আব্দুর রৌফ এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, আমাদের কৃষি আর আগের মতো নেই। আগের কৃষি দিয়ে এখনকার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা যাবেনা। এই সময়ের দাবি পূরণে দেশের কৃষিকে বাণিজ্যিক কৃষিতে পরিণত করার কোনো বিকল্প নেই। দেশের কৃষি পণ্য বিদেশে রপ্তানী করতে হবে। কানাডাসহ বিশ্বের এথনেক(প্রবাসী বাংলাদেশীদের বাজার) মার্কেটে বাংলাদেশের কৃষি পণ্যের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। কিন্তু তাদের চাহিদা অনুযায়ী মানসম্মত না হওয়ায় আমরা পাঠাতে পারছিনা। এই সমস্যা সমাধানের জন্য আমাদের সঙ্গে কানাডার একটি গবেষণা কাজের এমওইউ হতে যাচ্ছে। রপ্তানী নিশ্চিত করতে কমিউনিটি ফার্মিং ও জোনিং এর মাধ্যমে গুণগত মানের পণ্য উৎপাদনের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কৃষিবিদ ড. মো. আবদুল মুঈদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন অতিরিক্ত সচিব (সম্প্রসারণ উইং) সনৎ কুমার সাহা, বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি) এর চেয়ারম্যান মো. সায়েদুল ইসলাম ও জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (এফএও) বাংলাদেশ প্রতিনিধি মি. রবার্ট ডি. সিম্পসন। স্বাগত বক্তব্য দেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সরেজমিন উইংয়ের পরিচালক চন্ডী দাস কুন্ডু।
‘আমাদের কর্মই আমাদের ভবিষ্যৎ, পুষ্টিকর খাদ্যেই হবে আকাক্সিক্ষত ক্ষুধামুক্ত পৃথিবী’ প্রতিপাদ্যে গত ১৬ অক্টোবর রাজধানীর খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (কেআইবি) চত্বরে শুরু হয় বিশ্ব খাদ্য দিবস ২০১৯ এর এ মেলা। সম্পাদনা : আবদুল অদুদ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]