কণ্ঠ নিয়ে স্পষ্ট উচ্চারণ

আমাদের নতুন সময় : 21/10/2019

আহসান হাবিব : আমি যেদিন প্রথম মান্না দের ‘ও কেন এতো সুন্দরী হলো’ গানটি শুনি, মুগ্ধ ও বিস্মিত হই শুধু এর কণ্ঠ, সুর, কথা, সংগীতায়োজনের জন্য নয়, মনে আছে এর উচ্চারণের স্পষ্টতার জন্যও । তিনি যখন ‘হঠাৎ’ শব্দটি উচ্চারণ করলেন, আমার কান এক নতুন অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হলো, গড়পড়তা মানুষ একে উচ্চারণ করে ‘হটাৎ’ বলে । ‘ঠ’-এর উচ্চারণ আমাদের স্পষ্ট করে আসে না। তবে সেই থেকে আমি আর কখনো ‘ট’ বলিনি, বলেছি ‘ঠ’ । এভাবে আমার ভেতর শুদ্ধ উচ্চারণের প্রতি ঝুঁকে পড়া । উচ্চারণে আঞ্চলিকতাকে পরিহার করার চেষ্টা। সেটা এখনো কাটিয়ে উঠতে পেরেছি কিনা জানি না, তবে চেষ্টা অব্যাহত আছে। উচ্চারণের শুদ্ধতা এবং স্পষ্টতার জন্য যা প্রয়োজন তাহলো বাংলা ভাষার ধ্বনিতত্ত¡টা জানা । স্বরধ্বনি কীভাবে উচ্চারিত হয় এবং তা ব্যঞ্জনবর্ণের সঙ্গে যুক্ত হলে মুখমÐলের কোন অংশ কেমনভাবে বদলে যায়, সেসব ঠিকমত জানা। প্রতিটি স্বরবর্ণ উচ্চারণে মুখমÐলের সুনির্দিষ্ট কাঠামো আছে। যেমন ‘আ’-এর উচ্চারণে কেমন হবে মুখের আকৃতি, আবার ‘ই’-এর সময় কেমন হবে সেসব সুনির্দিষ্ট। যদি এসব উচ্চারণে মুখমÐলের সঠিক অবস্থান না থাকে, উচ্চারণ ভুল ও অস্পষ্ট হয়ে পড়বে। মুখমÐল মানে এখানে ঠোঁট, জিহŸা, চোয়াল, তালু ইত্যাদিকে বোঝানো হচ্ছে। আমাদের বর্ণমালার বিভিন্ন শ্রেণি আছে এসবের অবস্থানকে কেন্দ্র করেই।
উচ্চারণের স্পষ্টতার জন্য জানতে হয় কোন কোন বর্ণগুলো অল্পপ্রাণ এবং কোনগুলো মহাপ্রাণ ধ্বনি। মহাপ্রাণ ধ্বনিগুলোতে সামান্য জোর লাগে, তখন বাতাসের ধাক্কাটা বেশি দিতে হয় । যেমন ট হচ্ছে অল্পপ্রাণ ধ্বনি, কিন্তু ঠ মহাপ্রাণ, ফলে ঠ এর উচ্চারণে জিভের অবস্থান সামান্য বদলে যায়, দুটোই একই জায়গায় উচ্চারিত হলে একটাই বর্ণ শোনা যায়। এভাবে প্রতিটি বর্ণমালার উচ্চারণে মুখমÐলের অবস্থানের অনন্যতা আমাদের জানতে হয়। দুঃখের সঙ্গে লক্ষ্য করি যারা গান করেন, তাদের অধিকাংশই এসব জানেন না। স্বর উৎপাদনের বিজ্ঞান তো ঢের দূরের কথা। সব থেকে আশ্চর্যের বিষয়, এসব কেউ জানতেও চায় না। কথার সৌন্দর্য এর উচ্চারণের স্পষ্টতা এবং শুদ্ধতার উপরই নির্ভরশীল, বাচিক শিল্পের বেলায় তা অপরিহার্য। তাই আসুন, আমরা স্পষ্ট ও সঠিক উচ্চারণ বিষয়ে আগ্রহী হয়ে উঠি। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]