রাজস্বাক্ষী হয়ে নিজের দায় স্বীকার করেছেন মেনন, বললেন রিজভী

আমাদের নতুন সময় : 21/10/2019

 

শিমুল মাহমুদ : ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেননের দেয়া এক বক্তব্যকে স্বাগত জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। গতকাল রোববার নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী বলেন, সরকারের বিশ্বস্ত কমরেড রাশেদ খান মেননের বক্তব্যের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য কি তা আমাদের জানা নেই। তবে জাতির সামনে রাজস্বাক্ষী হয়ে রাতের ভোট ডাকাতির স্বীকারোক্তি প্রদানের মাধ্যমে নিজের দায় ও অপরাধ তিনি স্বীকার করে নিলেন। এই বক্তব্যের পর নৈতিকতা ও বাস্তবতার দিক দিয়ে সরকারের উচিত সংসদ ভেঙে দেয়া। সংসদে বহাল থাকার নৈতিক অধিকার তাদের নেই। বিএনপির সিনিয়র এ যুগ্ম মহাসচিব বলেন, বিবেকের তাড়নায় মেনন সাহেব যে সত্যকথাগুলি বলতে শুরু করেছেন, হয়তো কয়েকদিন পর ওবায়দুল কাদের এবং হাসান মাহমুদরাও বলবেন। আর এই কথাগুলি যতোই তাদের নিকট থেকে বেরিয়ে আসবে ততোই বন্ধক রাখা আত্মা মুক্ত হবে।
রিজভী বলেন, এখন দেশে চলছে ভানুমতির খেল। জনগণকে ধোকা দিতে সরকার নানা তেলেসমাতি দেখানোর চেষ্টা করছে। প্রধানমন্ত্রী যুবলীগের নেতাদের উদ্দেশ্য করে বলছেন, দুর্নীতিবাজরা গণভবনে আসতে পারবেনা। এই কথাটি জনমনে হাসি-তামাশার উদ্রেক করেছে। কারণ কে কাকে দুর্নীতিবাজ বলছে ? অপ্রিয় হলেও সত্য, খোদ গণভবনই এখন দুর্নীতিবাজদের নিয়ন্ত্রণে। বিএনপির এ মূখপাত্র বলেন, বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নামে ভুয়া ফেসবুক একাউন্ট খুলে একটি স্বার্থান্বেষী মহল বিভিন্ন ধরণের মন্তব্য ও বানোয়াট তথ্য পোষ্ট করছে, যা খুবই দু:খজনক। এধরণের তথ্য মন্তব্যের সঙ্গে তারেক রহমানের আদৌ কোন সংশ্লিষ্টতা নেই। আমি এধরণের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে সংশ্লিষ্ট মহলকে এই অপতৎপরতা থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করছি। সম্পাদনা : ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]