• প্রচ্ছদ » সর্বশেষ » ভিকারুননিসা স্কুলে জমজমাট প্রচার, চার ক্যাম্পাসে গভর্নিং বডি নির্বাচন শুক্রবার


ভিকারুননিসা স্কুলে জমজমাট প্রচার, চার ক্যাম্পাসে গভর্নিং বডি নির্বাচন শুক্রবার

আমাদের নতুন সময় : 22/10/2019

রমাপ্রসাদ বাবু : গভর্নিং বডি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের চার ক্যাম্পাসে প্রচার তুঙ্গে। ভোর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলছে টানা প্রচার। স্কুলের গেটে গেটে দাঁড়িয়ে অভিভাবকদের কাছে ভোট প্রার্থনা করছেন প্রার্থীরা। তাদের পক্ষ হয়ে ভোটের মাঠে নেমেছেন বিভিন্ন অভিভাবক ফোরাম। তারাও চালাচ্ছেন বিরামহীন প্রচার। চলছে মিছিল ও পথ সমাবেশ।
আগামী শুক্রবার ভিকারুননিসার বেইলি রোডের মূল শাখা, বসুন্ধরা, আজিমপুর ও ধানম-ি ক্যাম্পাসে একযোগে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত এ ভোট চলবে। ওইদিন রাতেই ফল প্রকাশের কথা রয়েছে। গত ৩ মে ভিকারুননিসার গভর্নিং বডির মেয়াদ শেষ হয়। নির্বাচনে প্রিসাইডিং অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) ফারজানা জামান।
তিন ক্যাটাগরিতে কলেজ শাখায় ৮ জন, মাধ্যমিকে ৯ জন এবং প্রাথমিকে ৬ জন প্রতিনিধি প্রতিন্দ্বদ্বিতা করছেন। এছাড়া নারী সংরক্ষিত কোটায় ৪ জন নির্বাচন করছেন। তাদের মধ্যে শিক্ষাবিদ, আমলা, ব্যবসায়ী, চিকিৎসক, ঠিকাদার, পুলিশ এবং আইনজীবী রয়েছেন। তাদের মধ্য থেকে প্রাথমিকে একজন, মাধ্যমিক ও কলেজে দু’জন করে চারজন এবং সংরক্ষিত একজনসহ মোট ৬ জন নির্বাচিত হবেন। এছাড়া একজন শিক্ষক প্রতিনিধিও থাকবেন এ কমিটিতে।
এ অভিভাবক ফোরামের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চার ক্যাম্পাসের বাইরে দেয়াল ও সড়ক পোস্টার এবং ব্যানারে ছেয়ে গেছে। গাছের ডালে, রাস্তায়, বিদ্যুতের খুঁটি, ল্যাম্পপোস্ট কিছুই বাদ পড়েনি পোস্টারে। সারি সারি শোভা পাচ্ছে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের ছবি ও ব্যালট নম্বর সংবলিত ফেস্টুন ও ব্যানার। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও সমানতালে চলছে প্রচার।
এদিকে, গভর্নিং বডি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন অভিযোগ ওঠেছে। প্রাথীরা জয় লাখ লাখ টাকা খরচ করছেন। তৈরি হয়েছে বিভিন্ন গ্রুপ, উপগ্রুপ ও প্রচার কমিটি। তাদের মাধ্যমেই এ টাকা যাচ্ছে সিন্ডিকেটের পকেটে। আগের কমিটির বিরুদ্ধে রয়েছে ভর্তি বাণিজ্যের অভিযোগ। অভিভাবকদের দাবি, এ নির্বাচনের মাধ্যমে সিন্ডিকেট প্রথা বিলুপ্ত হোক। জয়ী হোক স্কুল ও শিক্ষার্থীবান্ধব অভিভাবক প্রতিনিধি।
গভর্নিং বডি নির্বাচনে প্রাথমিক শাখার প্রার্থী অ্যাডভোকেট মো. সারোয়ার জাহান চৌধুরী শাকিল বলেন, জয়ী হতে পারলে কোনো অন্যায়কে প্রশ্রয় দেয়া হবে না। সিন্ডিকেটের ভর্তি বাণিজ্যের সঙ্গে কোনো আপোষ নয়। ভিকারুননিসায় সব শ্রেণি-পেশার মানুষ যেন তার সন্তানকে ভর্তি করতে পারে সে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
প্রাথমিক শাখার আরেক প্রার্থী পুলিশ সুপার গোলাম বেনজির বলেন, প্রথমেই বর্তমান সমস্যাগুলো সমাধান করা হবে। অভিভাবকদের আশ্বস্ত করতে চাই জয়ী হলে অবশ্যই ভর্তি বাণিজ্য ও সব ধরনের অনিয়ম-দুর্নীতি দূর করবো।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]