নাসিরনগরে হিন্দু পল্লীতে হামলা, তিন বছরেও ৭ মামলার চার্জশিট হয়নি

আমাদের নতুন সময় : 23/10/2019

 

এএইচ রাফি ও তৌহিদুর রহমান : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুর ঘটনার ৩ বছর অতিবাহিত হলেও এখনো ৭টি মামলার অভিযোগপত্র দিতে পারিনি পুলিশ। হামলার ঘটনায় ৮টি মামলা দায়ের করা হয়। শুধু একটি মামলা অভিযোগ জমা দিয়েছে পুলিশ। যদিও পুলিশ বলছে তদন্ত শেষে পর্যায়ক্রমে মামলার অভিযোগপত্র আদালতে জমা দেয়া হবে।
২০১৬ সালের ২৯ অক্টোবর ফেসবুকে পবিত্র কাবা শরীফ নিয়ে ব্যাঙ্গচিত্র করে পোস্ট দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে পরদিন ৩০ অক্টোবর দুস্কৃতিকারীরা নাসিরনগর উপজেলা সদরে তা-ব চালায়। এসময় উপজেলার কিছু মন্দির ও অর্ধ-শতাধিক ঘর-বাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাট করে। এরপর কয়েক দফায় দুস্কৃতিকারীরা আবারও উপজেলা সদরে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ করে। এসব ঘটনায় নাসিরনগর থানায় পৃথক ৮টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। গ্রেপ্তার করা হয়েছিল ১২৪ জনকে। বর্তমানে আদালত থেকে জামিনে বের হয়ে আসামিরা এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছে।
গৌর মন্দির মামলার বাদী নির্মল চৌধুরী জানান, নাসিরনগরের হামলার ঘটনাটি ছিল অনাকাঙ্খিত। এখানে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিরাজমান। এই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার জন্য একটি চক্র হয়তো কাজ করেছে। আমাদের প্রশাসনের কাছে দাবি থাকবে সকল মামলায় সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে চার্জশিট দেয়া হয়।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মুহাম্মদ আলমগীর হোসেন বলেন, মামলাগুলোর তদন্ত কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। এই ঘটনার পর মোট ৮টি মামলা হয়েছিল। এরমধ্যে একটি মামলা নিস্পত্তি হয়েছিল আর একটি জেলা গোয়েন্দা শাখায় তদন্তাধীন আছে। বাকী মামলাগুলো থানায় তদন্ত শেষে অভিযোগপত্র জমা দেয়া হবে। এসব মামলায় আসামির সংখ্যা অনেক বেশি, তাই তদন্ত শেষ করতে সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। তবে তদন্ত শেষ পর্যায়ে রয়েছে। আশা করছি অভিযোগপত্র দ্রুত দেয়া যাবে। সম্পাদনা : মুরাদ হাসান, ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]