• প্রচ্ছদ » » অনেকটা অলক্ষ্যেই চলে গেলো চাষী নজরুল ইসলামের আটাত্তরতম জন্মদিন


অনেকটা অলক্ষ্যেই চলে গেলো চাষী নজরুল ইসলামের আটাত্তরতম জন্মদিন

আমাদের নতুন সময় : 24/10/2019

ইমরুল শাহেদ : ঢাকার চলচ্চিত্র যে ক’জন রতœগর্ভ নির্মাতাকে হারিয়েছে তাদের মধ্যে একজন হলেন চাষী নজরুল ইসলাম। ২৩ অক্টোবর ছিলো তার ৭৮তম জন্মদিন। কিন্তু এদিন তাকে নিয়ে কোনো আলোচনা বা কোনো আয়োজনের কথা শোনা যায়নি। কেবল তার কিছু ভক্ত-অনুরক্ত ফেসবুকে কিছু আবেগী স্ট্যাটাস দিয়ে তাকে স্মরণ করেছেন। অথচ বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের ৪৪ বছরে চাষী নজরুল ইসলাম ২৯টি ছবি নির্মাণ করেছেন এবং সুকুমার মনোবৃত্তির দর্শকের জন্য রেখে গেছেন উল্লেখযোগ্য অবদান। তিনি ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই একজন ব্যতিক্রমী নির্মাতা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন। নির্মাতা হিসেবে তার যাত্রা শুরু হয় ১৯৭২ সালে। তখন সবে দেশ স্বাধীন হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধাদের দুঃখ, যন্ত্রণা, বিজয় ইত্যাদি উপাদানে সমৃদ্ধ মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক প্রথম ছবি ওরা ১১ জন নির্মাণ করে ঢাকার চলচ্চিত্রে ইতিহাস সৃষ্টি করেন তিনি। তার দু’বছর পর মুক্তিযুদ্ধে সেনাবাহিনীর ভ‚মিকা নিয়ে তিনি নির্মাণ করেন সংগ্রাম। পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর দখলদারিত্বের নয় মাসে বাংলাদেশে যেসব অবাঞ্ছিত ঘটনা ঘটেছে তার প্রতিচ্ছবি ওরা ১১ জন এবং সংগ্রামে স্থান পেয়েছে। ‘হাঙ্গর নদী’ ‘গ্রেনেড’ ছবিটিও মুক্তিযুদ্ধের প্রতিফলন ঘটিয়েছে। কামালপুরের মুক্তিযুদ্ধ নিয়েও একটি ছবি নির্মাণ করেছেন তিনি। মুক্তচেতনায় উদ্দীপ্ত চাষী নজরুল ইসলাম মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র নির্মাণের পাশাপাশি নির্মাণ করেছেন সাহিত্যনির্ভর চলচ্চিত্রও। তিনি ১৯৭৫ সালে প্রফুল্ল রায়ের একটি গল্প নিয়ে নির্মাণ করেছেন ‘ভালো মানুষ’। তবে শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের প্রতিও তার একটা অনুরাগ ছিলো। কারণ বাঙালি চেতনার গভীরে আছে শরৎচন্দ্রের অবস্থান। তিনি শরৎকে অনুসরণ করেই দর্শকের অনুভ‚তিকে নাড়া দিতে চেয়েছেন। ‘দেবদাস’, ‘চন্দ্রনাথ’, ‘শুভদা’, শাস্তি তারই প্রতিভ‚ হয়ে ওঠেছে। বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের উপন্যাস নিয়েও তিনি ‘বিরহ ব্যথা’ নামে একটি ছবি নির্মাণ করেছেন। তার অন্য ছবির মধ্যে রয়েছে, ‘বাজিমাত’, ‘লেডি স্মাগলার’, ‘মিয়া ভাই’, ‘বেহুলা ল²ীন্দর’, ‘মহাযুদ্ধ’, ‘বাসনা’, ‘দাঙ্গা ফাসাদ’, ‘পদ্মা মেঘনা যমুনা’, ‘দেশ জাতি জিয়া’, ‘আজকের প্রতিবাদ’, ‘শিল্পী’, ‘হাছন রাজা’, ‘মেঘের পরে মেঘ’, ‘ধ্রæবতারা’, ‘দুই পুরুষ’, ‘অন্তরঙ্গ’ এবং ‘ভুল যদি হয়’। শেষ ছবি ‘ভুল যদি হয়’ নিয়ে তিনি বেশ রসিকতা করতেন। তিনি বলতেন, ‘এতো ছবি বানালাম যদি কোনো ভুলত্রæটি হয়ে থাকে, সেজন্য সবার কাছে ক্ষমা চাইতেই ছবিটির নাম রেখেছি ‘ভুল যদি হয়’।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]