মিয়ানমারের ৪০ সেনা-পুলিশকে অপহরণ করেছে রাখাইন বৌদ্ধ বিদ্রোহীরা, পাল্টা সেনা অভিযান

আমাদের নতুন সময় : 28/10/2019

রাশিদ রিয়াজ : মিয়ানমারে একটি টহলরত নৌযানে হামলা চালিয়ে ৪০ পুলিশ ও সেনা সদস্যকে অপহরণ করেছে দেশটির জাতিগত রাখাইন বৌদ্ধ বিদ্রোহীরা। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর উদ্ধৃতি দিয়ে এএফপি এ তথ্য জানিয়েছে। আল-আরাবিয়া/দি হিন্দু/নিউইয়র্ক টাইমস
মিয়ানমার সেনাবাহিনীর মুখপাত্র জ্য মিন তুন জানিয়েছেন, শনিবার সকালের দিকে রাখাইনের রাজধানী সিত্তের উত্তরাঞ্চলে নৌযানে কর্তব্যরত পুলিশ ও সেনাসদস্যদের লক্ষ্য করে নদীর তীর থেকে গুলি ছোড়ে বৌদ্ধ বিদ্রোহীরা। তিনি বলেন, সেনাবাহিনীর ১০ জনের বেশি সদস্য, ৩০ জন পুলিশ ও কারা বিভাগের আরও দুই কর্মী ওই নৌযানে ছিলেন। পরে ৪০ জনকে অপহরণ করে নিয়ে যায় বিদ্রোহীরা। বিদ্রোহীদের অবস্থান শনাক্ত করতে সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার ঘটনাস্থলের চারপাশে টহল অভিযান শুরু করে। নদীর তীরবর্তী এলাকার আশপাশে বিদ্রোহীদের বিশাল ঘাঁটি শনাক্ত করা হয়েছে।
এ ঘটনায় মিয়ানমারের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের ওই রাজ্যে তীব্র উত্তেজনা সৃষ্টির পর বেশ কয়েক হাজার সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। সেনা সদস্যরা বিভিন্ন এলাকায় তল্লাশী চালাচ্ছে। জাতিগত রাখাইন বৌদ্ধ বিদ্রোহীরা রাজ্যের অধিকতর স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সঙ্গে লড়াই করে আসছে। মিয়ানমার সেনাবাহিনী জানিয়েছে, অপহরণের ঘটনার পর সেনারা আরাকা সেনা ঘাঁটি গুড়িয়ে দিতে অভিযান শুরু করে।
তবে এ ঘটনা সম্পর্কে রাখাইন বৌদ্ধ বিদ্রোহীদের পক্ষ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি। সপ্তাহ দুয়েক আগে বিদ্রোহীরা এক ঝটিকা অভিযান চালিয়ে মিয়ানমারের একই এলাকা থেকে ৩১ জনকে অপহরণ করে। অপহৃতরা অগ্নিনির্বাপণ কর্মী ও নির্মাণ শ্রমিক। ২০১৭ সালে ওই এলাকা থেকে ৭ লাখ ৪০ হাজার রোহিঙ্গা মুসলমানকে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সহায়তায় উগ্্র বৌদ্ধ গোষ্ঠী বাংলাদেশে পালিয়ে আসতে বাধ্য করে। বিষয়টি নিয়ে জাতিসংঘ তদন্ত করে বলেছে সেখানে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার শিকার হতে হয়েছে। সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]