কোনো প্রস্তুতি ছাড়াই ইডেনে গোলাপি বলের টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ

আমাদের নতুন সময় : 31/10/2019

রাকিব উদ্দীন : ব্যস্ততায় ভরা কর্মজীবনে বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম ক্রিকেট। দর্শকদের কাছে ক্রিকেটের আবেদন আরও বেশি হয় যখন খেলাগুলো বিকালে শুরু হয়ে রাতে শেষ হয়। অর্থাৎ কর্মঘণ্টার পর খেলা হলে সেটা দর্শকদের উপভোগ করতে সুবিধা হয়। দিবা-রাত্রির প্রথম ক্রিকেট হলো ওয়ানডে। ১৯৭৯ সালে প্রথম দিবা-রাত্রির ওয়ানডে ম্যাচ মাঠে গড়ায়। আর দীর্ঘ পরিসরের খেলা অর্থাৎ টেস্ট ক্রিকেটে দিবা-রাত্রির প্রথম ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয় ২০১৫ সাালে। ইতোমধ্যে ৪ বছর পেরিয়ে গেলেও বাংলাদেশ ফ্লাড লাইটের নিচে টেস্ট খেলেনি। সেই সুযোগ এসেছে টাইগারদের সামনে। আগামী ২২ ডিসেম্বর কলকাতার ইডেন গার্ডেনে বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচটি হবে দিবা-রাত্রির।
কিন্তু সমস্যা হলো দিবা-রাত্রির টেস্টে কিছু পার্থক্য আছে। অন্যান্য টেস্টে লাল বল দিয়ে খেলা হলেও দিবা-রাত্রির টেস্টে থাকে গোলাপি রঙের বল। যে বলে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা এখনো পর্যন্ত কোনো অনুশীলনই করেননি। যদিও বাংলাদেশের মতো ভারতও ফ্লাড লাইটের নিচে কখনোই লঙ্গার ভার্সনের ম্যাচ খেলেনি। অবশ্য এ নিয়ে চিন্তিত নন বিসিসিআইয়ের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি। তিনি মনে করেন, বাংলাদেশ খুব সহজেই মানিয়ে নিতে পারবে এ টেস্ট। একই সঙ্গে বাংলাদেশের কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোও বলেছেন তার শিষ্যরা দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলতে প্রস্তুত।
যদিও বাংলাদেশের ক্রিকেটে কিছুটা ঝড়-ঝাপটা যাচ্ছে। এর মধ্যেও দিবারাত্রির টেস্ট খেলতে রাজি হয়েছে বাংলাদেশ। অনভিজ্ঞতার পাশাপাশি বিশ^সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান না থাকাটাও সমস্যা হয়ে দাঁড়াতে পারে। নিষেধাজ্ঞায় পড়ার কারনে এক বছর ক্রিকেটে দেখা যাবে না এ তারকাকে। সম্পাদনা : ভিক্টর কে. রোজারিও




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]