বাগদাদির সন্ধানদাতা সাজেত পাচ্ছেন আড়াই কোটি ডলার

আমাদের নতুন সময় : 01/11/2019


রাশিদ রিয়াজ : দুই মাস আগে বাগদাদের কাছে ধরা পড়েন আইএস জঙ্গি মোহাম্মদ আলী সাজেত। বৈবাহিক সূত্রে বাগদাদির আত্মীয় সে। ২০১৫ সালে সে আইএস জঙ্গি দলে যোগ দেয়। তার কাছেই মেলে বাগদাদির খবর। এ খবর দেয়া বাবদ সাজেত পাবেন ২৫ মিলিয়ন ডলার। প্রায় ১৮৮ কোটি টাকা। বাগদাদির গতিবিধি সম্পর্কে তিনি নির্ভুল তথ্য পৌঁছে দিয়েছিলেন মার্কিন বাহিনীর কাছে। তার পর শিকারকে বাগে আনতে বিশেষ বেগ পেতে হয়নি। বাগদাদির বাঙ্কার সম্পর্কে নির্ভুল তথ্য দেয় সে। দি সান/ডেইলি মেইল/ওয়াশিংটন পোস্ট
ইসলামিক স্টেটের ঘরের শত্রু বিভীষণকে এবার পুরস্কৃত করতে যাচ্ছে ট্রাম্প প্রশাসন। আইএস’র ঘরের লোক, সাজেত সাহায্য ছাড়া ইসলামিক স্টেটের প্রধান আবু বকর আল-বাগদাদিকে নিকেশ করা মার্কিন সেনার একার পক্ষে কঠিনই ছিল। ২৫ মিলিয়ন ডলার ছিল বাগদাদির মাথার দাম। ওয়াশিংটন পোস্টের এক রিপোর্টে এই পুরস্কারের কথা জানানো হয়েছে।
উত্তরপশ্চিম সিরিয়ায় আইসিস প্রধানের সুরক্ষিত ভবনের খবর সাজেতের কাছ থেকে পাওয়ার পর বাগদাদির অবস্থানকে ঘিরে হামলা পরিকল্পনা করে পেন্টাগন। মার্কিন বিশেষ বাহিনীর অভিযানে, তা গুঁড়িয়ে দেয়া হয়। মার্কিন সেনা কুকুরের ধাওয়া খেয়ে, বাগদাদি যখন পালানোর চেষ্টা করছিলেন, নিজেরই পরনে থাকা বিস্ফোরক ভেস্টে উড়ে যান। তার আগে ওই সুরক্ষিত ভবনেরই সুড়ঙ্গে লুকিয়ে ছিলেন আইসিস প্রধান।
বাগদাদি সম্পর্কিত খবর দেওয়া, আইসিস ঘনিষ্ঠ মার্কিন ওই চরের পরিচয় গোপন রাখলেও তা মিডিয়ায় প্রকাশ হয়ে যায়। তাকে এখন বিশেষ নিরাপত্তা দেয়া হচ্ছে। সুরক্ষা দিতেই তাঁর পরিচয় ফাঁস করতে চায়নি ট্রাম্প প্রশাসন। সাজেত একজন সুন্নি আরব। ইসলামিক স্টেটের হাতে তার স্বজনেরা নিহত হন। সেই স্বজন-খুনের চরম বদলা নিতেই সে মার্কিন সেনার পক্ষ নেয়। সিরিয়ান ডেমক্রেটিক ফোর্স, এসডিএফ ও আইএস বিদ্রোহীর খোঁজ পেতেই, তা মার্কিন সেনাকে জানায়। মার্কিন গোয়েন্দারা কয়েক দফায় তাঁর সঙ্গে কথা বলেন। তাঁর দেওয়া খবর কতটা খাঁটি, তা যাচাই করেও দেখা হয়। তার পরেই বাগদাদি খতমের অভিযান কৌশল রচনা করা হয়। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]