বুয়েট অচলাবস্থার এক মাস, পরিবেশ কবে স্বাভাবিক হবে কেউ জানে না

আমাদের নতুন সময় : 04/11/2019


আসিফ কাজল : আবরার ফাহাদ হত্যার একমাস হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত অচল বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয় (বুয়েট)। প্রশাসনিক কার্যক্রম সচল থাকলেও দীর্ঘ ৩০ দিনেও শুরু হয়নি একাডেমিক কার্যক্রম। ফলে দেশসেরা এই বিশ্ববিদ্যালয়ের অচলাবস্থা কবে দূর হবে এ বিষয়ে সদুত্তর দিতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। সব যেনো আটকে আছে অজানা বৃত্তে। তবে আবরার হত্যার চার্জশিট না হওয়া পর্যন্ত এ সংকট কাটবে বলে মনে করেন না শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।
গত ৬ অক্টোবর বুয়েটের শেরেবাংলা হলে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। পরদিন থেকে আবরার হত্যায় জড়িতদের ক্যাম্পাস থেকে স্থায়ী বহিষ্কার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিসহ শিক্ষার্থীদের ১০ দফা দাবিতে একমাস ধরে অচল বুয়েট ক্যাম্পাস। এসময় শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবিকে মেনে নিয়ে একাতœতা ঘোষণা করেন বুয়েট অ্যালামনাই ও শিক্ষক সমিতি। শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে গত ১১ অক্টোবর অডিটোরিয়মে আলোচনায় বসেন বুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলাম। ওই দিন শিক্ষার্থীদের সকল দাবি মেনে উপাচার্য ক্যাম্পাসে সকল প্রকার রাজনীতি নিষিদ্ধ এবং ১৯ জন শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়। গত ১২ অক্টোবর আন্দোলনকারীদের ৫ দফা দাবি মেনে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বুয়েট প্রশাসন। ঘটনার প্রেক্ষিতে ১৩ ও ১৪ অক্টোবর আন্দোলন শিথিল করে শিক্ষার্থীরা। দু’দিন শিথিল আন্দোলনের মধ্যেই অনুষ্ঠিত হয় বুয়েট ভর্তি পরীক্ষা। এরপর থেকেই বুয়েটের বিভিন্ন হলে অভিযান চালায় প্রশাসন। এসময় একাধিক হলের রাজনৈতিক কার্যালয় সিলগালা করা হয়। এছাড়া বুয়েট উপাচার্যের পদত্যাগ চেয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।
আন্দোলন শিথিল করে মাঠের আন্দোলন থেকে সরে গেলেও আন্দোলন থামেনি শিক্ষার্থীদের। ক্লাশ বর্জনসহ তাদের আন্দোলন এখন পর্যন্ত চলমান। গত ১৯ অক্টোবর সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেনি শিক্ষার্থীরা। বুয়েট চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ও আন্দোলনের অন্যতম মুখপাত্র তাসমিয়া তিথি বলেন, আবরার হত্যায় যাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে তাদেরকে বিশ^বিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিষ্কার না করা পর্যন্ত অচল অবস্থার নিরসন হবে না।
এ বিষয়ে ডিএমপি পশ্চিম অঞ্চলের গোয়েন্দা পুলিশের এডিসি আরাফাত হোসেন লেলিন বলেন, চলতি সপ্তাহের মধ্যে চার্জশিট দেয়া হতে পারে এছাড়াও এখন পর্যন্ত আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় ২১জন শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সম্পাদনা : রমাপ্রসাদ বাবু




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]