বাংলাদেশি সাইফুল্লাহ বিশ্বের বৃহৎ মানবপাচারকারী

আমাদের নতুন সময় : 05/11/2019

মোহাম্মদ আলী বোখারী, টরন্টো থেকে

বিশ্বের গণমাধ্যমে গত শনিবার সাইফুল্লাহ আল মামুনের গ্রেপ্তারের সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার আগে নাকি বাংলাদেশের আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কর্মকর্তারা তার সম্পর্কে কিছুই জানতেন না। অথচ ‘ইন্টারপোলের কালো তালিকাভুক্ত’ ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে গত সপ্তাহেই যুক্তরাষ্ট্র সরকার গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে।
যুক্তরাষ্ট্রের জাস্টিস ডিপার্টমেন্টের দাবি অনুযায়ী, ব্রাজিলে ৬ বছর ধরে শরণার্থী হিসেবে আশ্রিত সাইফুল্লাহ আল মামুন হচ্ছেন বিশ্বের বৃহৎ মানবপাচারকারী এবং গত বৃহস্পতিবার ব্রাজিলের ফেডারেল পুলিশ কর্তৃক গ্রেপ্তার হওয়া সাত অভিবাসীর একজন। ওই গ্রেপ্তার অভিযানে গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছেন- সাইফুল্লাহ আল মামুন (৩২), সাইফুল ইসলাম (৩২), তামুর খালিদ (৩১), নজরুল ইসলাম (৪১), মোহাম্মদ ইফরান চৌধুরী (৩৯), মোহাম্মদ নিজাম উদ্দীন (২৮) ও মো. বুলবুল হোসেন (৩৬)।
তাকে সাও পাওলোর কেন্দ্রভাগে ব্রাস এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ব্রাজিল থেকে যুক্তরাষ্ট্রে দক্ষিণ এশিয়ার নাগরিক পাচারের অভিযোগ রয়েছে। এতে জনপ্রতি ৪৭ হাজার রিজ অর্থাৎ ১১ হাজার মার্কিন ডলারের উপরে অর্থ আদায় করার কথা সম্পৃক্ত।
এক্ষেত্রে ২০১৮ সালের মে মাসে একটি অভিযোগ পেয়ে ব্রাজিলের ফেডারেল পুলিশ যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন ও শুল্ক দপ্তর (আইসিই) নিয়ন্ত্রিত বর্হিবিশ্বের ভ্রাম্যমান অপরাধ বিভাগ (ইসিটি)-র সহযোগিতায় তদন্ত শুরু করে, যা ‘ব্রাস স্টেশন ইন ব্রাজিল’ হিসেবে অভিহিত এবং তা যুগপৎ ২০টি দেশে পরিচালিত হয়।
যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃপক্ষের কাছে অভিবাসীদের অভিযোগ, তারা ভুয়া পাসপোর্ট ও কাগজপত্রের বিনিময়ে ব্রাজিলের গারুলহোস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে এবং তাতে সাইফুল্লাহ ভুয়া অভিবাসনের নিবন্ধন যোগান। তাদের অধিকাংশই এসেছেন আফগানিস্তান, বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান ও অপরাপর দক্ষিণ এশিয়ার দেশ থেকে।
ব্রাজিলিয়ান ফেডারেল পুলিশ সূত্রে প্রকাশ, এই আদমপাচারে সংশ্লিষ্টরা টেক্সির চালকের সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপ বা মেসেঞ্জারে কথপোকথন বিনিময়সহ অভিবাসীদের ছবি পাঠিয়ে ব্রাজিল থেকে পেরু সীমান্তে নিয়ে যেতেন। এরপর ওই পাচারকৃতদের যাত্রা শুরু হতো ক্রমান্বয়ে ইকুয়াডোর, কলম্বিয়া, পানামা, কোস্টারিকা, হন্ডুরাস, অ্যাল সালভাদর, গুয়েতিমালা ও মেক্সিকো অভিমুখে। এ সকল তথ্য ৩০৩ অনুচ্ছেদ বিশিষ্ট ৬৫-পৃষ্টার অভিযোগপত্রে তুলে ধরেছেন ব্রাজিল ফেডারেল পুলিশের প্রতিনিধি মিল্টন ফরনাজারি জুনিয়র।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]