সাদেক হোসেন খোকা মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন, সো হোয়াট?

আমাদের নতুন সময় : 05/11/2019

সুলতান মির্জা : বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার লাশ বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে সরকারের নির্বাহী মানবিক নির্দেশ আর একজন সাদেক হোসেন খোকার জন্য শোকে শোকায়িত হয়ে যাওয়া এক বিষয় নয়। সাদেক হোসেন খোকা মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন, সো হোয়াট? পাশাপাশি এটাও তো সঠিক এই দেশে রাজাকারের গাড়িতে জাতীয় পতাকা লাগিয়ে দিয়েছেন সাদেক হোসেন খোকা। তাহলে তার মৃত্যুতে একজন মুক্তিযোদ্ধার জন্য কান্নাকাটি করে ফেসবুক ভাসিয়ে ফেলাটা যদি হয় আমার আমাদের কারো কারো অধিকার। প্রশ্ন হচ্ছে রাজাকারের গাড়িতে জাতীয় পতাকা তুলে দেওয়ার অপরাধে সাদেক হোসেন খোকার প্রতি এখনো ঘৃনা প্রকাশ করাটা কেন হবে না আমার আমাদের অধিকার? মানুষ মরে গেলেই সকল সমালোচনার উর্ধ্বে উঠে যায় এইসব থিউরি শুনতে মিয়া মিয়া লাগলেও, এটাও সত্য মানুষ জীবিত বা মৃত বেচে থাকে তার কর্মের গুণে। প্রশ্ন করি সাদেক হোসেন খোকার সেই মহত কর্মটা কি ছিলো? পলিটিশিয়ান হলেই দুর্নীতিবাজের অভিযোগ হবে বিষয়টা এমন নয়। বিষয়টা হলো আদালত কর্তৃক রায়ে স্বীকৃত একজন সাজাপ্রাপ্ত দুর্নীতিবাজ ছিলেন সাদেক হোসেন খোকা। দা বটি ছুরি বল্লম নিয়ে সরকার উৎখাতের স্বপ্ন দেখেছিলো একদা। মাঠ গরম বক্তব্য দিয়ে ফেসে গিয়েছিলো অতঃপর চিকিৎসার নাম করে কোনো রকমে দেশ ছেড়ে প্রথমে লন্ডন, তারপরে নিউইয়র্কে বসবাস শুরু করে। সেখানেও সাদেক হোসেন খোকা তারই সহযোদ্ধা পলিটিশিয়ান আরেক রাজাকার ওসমান ফারুকের সঙ্গে মিলেমিশে বাংলাদেশবিরোধী রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন। উল্লেখ্য ভাইবার মান্নার আলোচিত ক্যাম্পাসে লাশ চাওয়ার রাজনীতির ফোনালাপের অপর প্রান্তের ব্যাক্তিটি ছিলেন এই সাদেক হোসেন খোকা। যিনি ৪ নভেম্বর নিউইয়র্কে মারা গেছেন। তার মৃত্যুতে আবেদনময়ী প্রতিক্রিয়া দেখানোÑতিনি একজন ভালো পলিটিশিয়ান ছিলেন এইসব বলা কিংবা মৃত্যুর আগে পর্যন্ত কারো সাথে আপোস করেননি উল্লেখ করলে বিষয়টা কী দাড়ায়? সাদেক হোসেন খোকা বাংলাদেশের আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে নিউইয়র্কে পালিয়েছিলেন। মারা গেছেন একজন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি হিসেবে। কাজেই সাদেক হোসেন খোকা মোটেও ভালো কোনো পলিটিশিয়ান ছিলেন না। সাদেক হোসেন খোকা ছিলেন বিএনপির মিক্সার রাজনীতির এক চিমটি মুক্তিযোদ্ধা, যারে নিয়া গল্প করলে অনেকক্ষণ করা যেতেই পারে, কার্যত আদর্শ নিয়ে গল্প করলে ফলাফল দাঁড়াবে একজন লোভী স্বার্থবাজ মুক্তিযোদ্ধা, যিনি রাজাকারের বিরুদ্ধে রণাঙ্গনে যুদ্ধ করলে যুদ্ধ শেষে মিলেমিশে হালুয়া-রুটি খেতে রাজাকারের সঙ্গেও সহবাস করেছেন। আর কিছু না। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]