ফুটবল ম্যাচ এখন পরিচালনা করছেন নারী রেফারিরা

আমাদের নতুন সময় : 07/11/2019

আক্তারুজ্জামান : বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা ফুটবল। ফুটবলে খেলায় গুরুদায়িত্ব পালন করেন ম্যাচ পরিচালক, যিনি রেফারি নামে পরিচিত। একটি ম্যাট পরিচালনার সময় তিনজন রেফারি থাকেন। ১৫৮১ সালে রেফারি রাখার প্রচলন শুরু হলেও আন্তর্জাতিকভাবে রেফারির ব্যবহার শুরু হয় ১৮৪৫ সালে। পুরুষের পাশাপাশি নারীরাও ফুটবলে সমানভাবে অংশ নিচ্ছে। তবে পুরুষরা সবসময়ই ম্যাচ পরিচালনা করে আসছিলেন। প্রথম নারী হিসেবে ম্যাচ পরিচালনা করে এই নিয়ম ভাঙেন পাবলো বেজোলি।
২৫-২০ খ্রিস্ট পূর্বাব্দে নারীরা ফুটবল খেলা শুরু করলেও ১৮৯৫ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত স্কটিশ অ্যাসোসিয়েশন ও গ্লাসগোর মধ্যকার খেলাটি নারীদের রেকর্ডকৃত ম্যাচ। তবে নারীদের ফুটবলে ম্যাচ পরিচালনা শুরু হয় নারীদের দ্বারা। আন্তর্জাতিকভাবে ম্যাচ শুরুর পর বিভিন্ন ক্লাবও নারীদের রেফারিং শুরু করে। তারপর পুরুষদের ফুটবলেও নারী রেফারি রাখা শুরু হয়। চলতি বছরে যেনো পুরুষদের টুর্নামেন্টে নারী রেফারি রাখার হিড়িক পড়ে। ফ্রান্সের সর্বোচ্চ ঘরোয়া আসর ‘লিগ ওয়ানে’ ম্যাচ পরিচালনা করে ইতিহাস গড়েন স্টেফানি ফাপার্ট। কয়েকদিন পর উয়েফা সুপার কাপে লিভারপুল ও চেলসির ম্যাচেও মূল রেফারি ছিলেন ফাপার্ট। ফ্রান্সের এই নারীই ইউরোপীয় ফুটবলে প্রথম পুরুষদের ম্যাচ পরিচালনা করেন।
নারী রেফারির জয়গান ছড়িয়ে পড়েছে বাংলাদেশেও। গত আগস্ট মাসে ফিফার রেফারি লিস্টে নাম উঠেছে দুজন বাংলাদেশি নারীর। ২৪ আগস্ট ফিফার কাছ থেকে সুসংবাদ পান সালমা আক্তার ও জয়া চাকমা। ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে ফিফার রেফারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন এ দুজন। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]