নাগপুরে অঘোষিত ফাইনালের অপেক্ষায় বাংলাদেশ-ভারত

আমাদের নতুন সময় : 08/11/2019

আক্তারুজ্জামান : সিরিজের প্রথম ম্যাচ জিতে এগিয়ে ছিলো বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচেই সিরিজ নিশ্চিত করতে চেয়েছিলো টাইগাররা। কিন্তু রোহিত শর্মার রুদ্রমূর্তিতে সেটা আর হয়ে ওঠেনি। দিল্লির চেহারা ফেরেনি রাজকোটে। ফলে দুই ম্যাচ শেষে সিরিজ ১-১ সমতায় আছে। ফলে সিরিজের শেষ ম্যাচ রূপ নিয়েছে অঘোষিত ফাইনালে। সিরিজ নিষ্পত্তির জন্য অপেক্ষা করতে হবে শেষ ম্যাচ পর্যন্ত। আগামীকাল রোববার নাগপুরের বিদর্ভ স্টেডিয়ামে সিরিজের শেষ ম্যাচে লড়বে বাংলাদেশ-ভারত। আগের দুই ম্যাচের মতো এটাও সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় শুরু হবে।
নাগপুরের ওই ম্যাচ শেষে টেস্ট সিরিজের জন্য তৈরি হতে হবে বাংলাদেশকে। কেননা ভারতের মাটিতে এই প্রথম একাধিক টেস্ট খেলার আমন্ত্রণ পেয়েছে টাইগাররা। দুই ফরম্যাটের জন্য আলাদা দল ঘোষণা করেছিলো বিসিবি। টি-টোয়েন্টি দলের সঙ্গে কিছু ক্রিকেটর থাকলেও টেস্টের জন্য কয়েকজন বাকি ছিলো। দলের বাকি ক্রিকেটাররা গতকাল ঢাকা ছেড়ে কলকাতায় পৌঁছান মুমিনুল, সাদমান, সাইফ, ইমরুল, মিরাজ, নাঈম, এবাদত ও আবু জায়েদ রাহী। তারা কলকাতা হয়ে নাগপুরে যান। এই দুই টেস্ট দিয়েই আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হবে বাংলাদেশের।
রাজকোটের ভুলগুলো নাগপুরের মাঠে করতে চায় না মাহমুদউল্লাহবাহিনী। বরং দিল্লির স্মৃতি ফিরিয়ে আনার কথায় ভাবছে টাইগারা। তেমনটাই মনে হলো পেসার শফিউলের কথাতে। শফিউল বলেন, অবশ্যই, আমাদের এখনও সুযোগ আছে, যদি আমরা প্রথম ম্যাচের মতো ভালো ক্রিকেট খেলি। আর গত ম্যাচের যে ভুলগুলো ছিলো, সামনের ম্যাচে তা শোধরাতে পারলে আমাদের সিরিজ জেতা সম্ভব। আশা করি, আমরা দৃঢ়ভাবে ঘুরে দাঁড়াবো। আমরা সিরিজ জেতার জন্যই খেলবো।
তবে হারলেও রোহিত শর্মার ব্যাটিং থেকে বাংলাদেশের অনেক কিছু শেখার আছে বলে মনে করছেন শফিউল। সেই সঙ্গে রাজকোটের হার দলের ওপর মানসিকভাবে কোনো প্রভাব ফেলেনি বলে জানিয়েছেন এই পেসার। রোহিত শর্মার ভালো একটা দিন গিয়েছে। তবে এদের মানসিকভাবে আমাদের দুর্বল হওয়ার কিছু নেই। কারও এমন দিন গেলে যেকোনো দলকে হারানো সম্ভব। আমরা সবাই শক্ত আছি, এখনও একটা সুযোগ আছে। সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]