• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » কারতারপুর করিডর উদ্ভোধন করলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, প্রথম তীর্থযাত্রী দলে মনমোহন


কারতারপুর করিডর উদ্ভোধন করলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, প্রথম তীর্থযাত্রী দলে মনমোহন

আমাদের নতুন সময় : 09/11/2019

শাহনাজ বেগম : গুরু নানক দেবের ৫৫০তম জন্মবার্ষিকীর ৩ দিন আগে গুরু নানকের অনুসারীদের জন্য কারতারপুর করিডর খুলে দেয়া হয়েছে। ঐতিহাসিক ওই করিডর শনিবার উদ্বোধন করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান। তীর্থযাত্রীদের স্বাগত জানিয়েছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশী বলেন সব কিছু সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের জন্য । ডন, দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন, এনডিটিভি
সাড়ে পাঁচশ তীর্থযাত্রীর ওই দলে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং, অভিনেতা-রাজনীতিবিদ সানি দেওল, ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হারদিপ পুরি ও হারসিমরাত কাউর বাদলেরও নাম রয়েছে। কারতারপুরের এ করিডর ব্যবহারের জন্য ভারতীয় তীর্থযাত্রীদের কাছ থেকে জনপ্রতি ২০ ডলার নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইসলামাবাদ। তবে প্রথম দিন এ ফি দিতে হবে না বলে জানিয়েছে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
ভিসা ছাড়াই শ্রদ্ধেয় শিখ গুরুর চূড়ান্ত বিশ্রামস্থলটি দেখার অনুমতি দিয়েছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তাঁর বক্তবে শিখ সম্প্রদায়ের স্বাগত জানিয়ে বলেন, আমি শুধু সীমান্ত নয় শিখদের জন্য আমরা আমাদের হৃদয় খুলে দিয়েছি। ধর্ম আমাদের দুটি জিনিস শেখায়, ন্যায়বিচার এবং প্রেম। আমি এক বছর আগে করতারপুর সাহেবের মূল্য সম্পর্কে জানতে পেরেছিলাম, যা বিশ্বের শিখদের জন্য মদীনা। কাশ্মীরের বিষয়টি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী মোদীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, কাশ্মীর সমস্যা সমাধান জরুরি। দুর্ভাগ্যক্রমে কাশ্মীরের মানুষের অবস্থা আরও খারাপ হয়ে গেছে এবং সেখানে মানবিক সঙ্কট বেড়েছে।
৪.৫ কিলোমিটার দীর্ঘ করিডোরটি পাঞ্জাবের গুরুদাসপুরের ডেরা বাবা নানক মাজার পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের নরোওয়াল জেলায় অবস্থিত। এটি আন্তর্জাতিক সীমান্ত থেকে প্রায় চার কিলোমিটার দূরের কারতারপুরের দরবার সাহেবের সাথে সংযুক্ত। যেখানে শিখ ধর্মের প্রতিষ্ঠাতা গুরু নানক দেব তাঁর জীবনের শেষ ১৮ বছর অতিবাহিত করেছিলেন বলে মনে করা হয়। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]