স্বস্তিতে সেন্টমার্টিনে আটকে পড়া পর্যটকরা

আমাদের নতুন সময় : 11/11/2019

লাইজুল ইসলাম : ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর কারণে এখনো সেন্টমার্টিনে আটকে আছে ১২০০ জন পর্যটক। তবে স্বস্তির বিষয় সেখানে আটকে পরা পর্যটকদের ঘূর্ণিঝড়ের কারণে কোনো সমস্যা পরতে হয়নি। ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় পর্যটকদের মানসিক ভাবে সহযোগিতা জুগিয়েছে প্রশাসন। আর এ কারনেই চিন্তার ছাপ থাকলেও তাদের মাঝে আতঙ্ক লক্ষ্য করা যায়নি।
সেন্টমার্টিনে অবস্থানরত বেসরকারি একটি টেলিভিশনের কর্মকর্তা জানান, আমরা এখানে এসেছিলাম ঘুরতে। ঘুরতে ঠিকই পেরেছি, তবে আতঙ্ক ও ভয়ও ছিলো আমাদের মধ্যে। যদি ঘূর্ণিঝড়টা না হতো তবে হয়তো এতটা সমস্যা হতো না। আমরা শান্তিতে ঘুড়ে চলে যেতে পারতাম। আতঙ্ক কেটে গেছে তবে ফিরে যাওয়ার তাড়া বেড়েছ সবার মধ্যে। সেখানে অবস্থানরত পর্যটকরা বলেন, ঝড় থেমে গেলেও সাগড়ে বিশাল বিশাল ঢেউ রয়েছে। যা দেখলে ভয় হয়। বাচ্চাদের নিয়ে এই অবস্থায় আতঙ্কতো কিছুটা থাকেই। আশাকরি আগামীকাল আমরা টেকনাফের দিকে রওনা দিতে পারবো।
এসময় এক বেসরকারি চাকরিজীবী বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল চলে যাওয়ার পর সেন্টমার্টিনে আমরা সবাই স্বস্তিতে আছি। তবে সবার মাঝে বাড়ি ফেরার তাড়া লক্ষ্য করা গেছে । প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে আবহাওয়া অনুক’লে থাকলে সোমবার থেকে চলবে পর্যটনবাহী জাহাজ। সেন্টমার্টিনে পর্যটক ও পারিপার্ষিক বিষয়ে জানতে চাইলে কোস্টগার্ডের স্থানীয় কন্টিনজেন্ট কমান্ডার বলেন, এখন পরিবেশ অনেক ভালো। সাগরের ঢেউ অনেক বড় বড়। এই অবস্তায় আমরা কাউকেই যেতে দিবো না। তবে আগামী কাল যদি পরিবেশ অনুকূলে আসে তবে জাহাজ চলাচল করবে। সম্পাদনা : ইকবাল খান, খালিদ আহমেদ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]