• প্রচ্ছদ » সর্বশেষ » অন্যের স্ত্রীকে ভাগিয়ে বিয়ে করা উল্লাপাড়ার সেই মেয়রের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ


অন্যের স্ত্রীকে ভাগিয়ে বিয়ে করা উল্লাপাড়ার সেই মেয়রের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

আমাদের নতুন সময় : 12/11/2019

সোহাগ হাসান : সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ব্যবসায়ী রাজন আহমেদের স্ত্রী সহকারী শিক্ষিকা গুলশানারা পারভীন পান্নাকে ভাগিয়ে নিয়ে বিয়ে করা উল্লাপাড়ার পৌর মেয়র ও পৌর আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক এস. এম নজরুল ইসলাম মাত্র ৪ বছরের ব্যবধানে ৩ বিঘা জমিসহ ৫ কোটি টাকার সম্পত্তির মালিক বনে গেছেন। গত অক্টোবর মাসে মেয়র নজরুল ইসলামের দুর্নীতি, অর্থ আত্মসাৎ ও জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের বিষয়টি দুদকের নজরে আসলে তদন্তের স্বার্থে দুর্নীতি দমন কমিশন সমন্বিত পাবনা জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আতিকুর রহমান স্বাক্ষরিত পত্রে মেয়রের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির রেকর্ড পাঠাতে উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে নির্দেশ দিয়েছেন।
তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, ২০০৪ সালে উল্লাপাড়া পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালন ও ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগ দলীয় সমর্থন নিয়ে নৌকা প্রতীকে মেয়র নির্বাচিত এবং পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পান ।
এদিকে ব্যবসায়ী রাজন আহমেদের স্ত্রীকে জোড়পূর্বক বিয়ে করার ঘটনা নিয়ে উল্লাপাড়ার সর্বত্র চলছে আলোচনা ও সমালোচনার ঝড়।
মেয়রের প্রভাবে মামলা তো দূরের থাক আজ পর্যন্ত কোথাও কোনো অভিযোগও করতে পারেননি গুলশানারার স্বামী রাজন আহমেদ।
চর ঘাটিনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, মসজিদের মাটি ভরাটের জন্য ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। কিন্তু দীর্ঘ দুই বছরেও বরাদ্দকৃত অর্থ পাইনি।
উল্লাপাড়া পৌর এলাকার ঘাটিনা পশ্চিমপাড়া আজাদ মসজিদের সভাপতি আব্দুল মান্নান, ঘোষগাতি মৃধাবাড়ী জামে মসজিদের সভাপতি ফজলুল হক মৃধা, চর ঘাটিনা দক্ষিণপাড়া মসজিদের সভাপতি মঈনুল হক ও চর ত্রিফলগাঁতি পশ্চিমপাড়া জামে মসজিদের সভাপতি মিজানুর রহমান জানান, মসজিদ উন্নয়নের জন্য এডিপি থেকে ৫০ হাজার টাকা করে বরাদ্দ দেয়া হয়। দীর্ঘ দুই বছর একাধিকবার পৌর মেয়রের কাছে ঘুরে ঘুরে বরাদ্দকৃত টাকা উত্তোলন করতে পারিনি।
দুদকের তথ্য চাওয়ার বিষয়ে উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আরিফুজ্জামান জানান, আওয়ামী লীগ সমর্থিত পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম দুর্নীতি, অর্থ আত্মসাতের যে রেকর্ডপত্রসহ নির্বাচনী হলফনামা চাওয়া হয়েছিল তা ইতোমধ্যে দুর্নীতি দমন কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। তারা তদন্তপূর্বক যা করণীয় তা করবে।
এ বিষয়ে উল্øাপাড়া পৌরসভার মেয়র এস.এম নজরুল ইসলাম বলেন, আমি ষড়যন্ত্রের শিকার, এডিপির বরাদ্দে কিছু সমস্যা হয়। তবে বরাদ্দকৃত প্রতিষ্ঠানগুলোতে অনুদানের অর্থ দেয়া হয়েছে। গুলশানারা পারভীন পান্না আমার স্ত্রী। তাকেই নিয়ে আমি ঘর সংসার করছি। সম্পাদনা : ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]