রাঙ্গাকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে বললেন আওয়ামী লীগ নেতারা

আমাদের নতুন সময় : 12/11/2019

 

বাশার নূরু : ১৯৮৭ সালের ১০ নভেম্বর স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে শহীদ নুর হোসেন ‘ইয়াবা খোর ও নেশা খোর ছিল’, জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গার রোববারে দেওয়া এমন বক্তব্যের প্রতিবাদে সোমবার ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা একথা বলেন। নেতারা বলেন, জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা এইচ এম এরশাদ সংসদে দাঁড়িয়ে শহীদ নুর হোসেনের পরিবারের কাছে ক্ষমা চেয়েছিলেন। এখন তার দলের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান রাঙ্গা সেই নুর হোসেনকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দিয়ে গণতান্ত্রিক আন্দোলনের সকল শহীদদেরকে চরম অপমান করেছেন। রাঙ্গার বক্তব্যে গোটা জাতি মর্মাহত হয়েছে। ব্যক্তিগতভাবে কেউ অত্যন্ত কুরুচিপূর্ণ না হলে এমন বক্তব্য দিতে পারেন না।
আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব উল আলম হানিফ এমপি বলেন, শহীদ নুর হোসেন কেবল কোনো ব্যক্তি নয়, তিনি গণতান্ত্রিক আন্দোলনের সকল শহীদদের একটি প্রতিচ্ছবি। তার রক্তের সিঁড়ি বেয়ে স্বৈরাচার শাসনের অবসান হয়ে গণতান্ত্রিক ধারা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। ‘স্বৈরাচার নিপাত যাক, গণতন্ত্র মুক্তি পাক’ বুকে ও পিঠে লিখে নুর হোসেন বন্দুকের নলের সামনে বুক পেতে দিয়েছিল। আজ তাকে নিয়ে একজন রাজনীতিক কিভাবে এমন কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দিলেন? আসলে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা নিজে বেসামাল অবস্থায়ই এমন বক্তব্য দিয়েছেন বলে আমি মনে করি। কোনো সুস্থ মানুষ শহীদ নুর হোসেনকে নিয়ে এমন বক্তব্য দিতে পারেন না বলে আমি বিশ্বাস করি। রাঙ্গাকে অবিলম্বে তার বক্তব্য প্রত্যাহার করে জাতির কাছে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানান হানিফ।
আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, শহীদ নুর হোসেনকে নিয়ে মশিউর রহমান রাঙ্গার বক্তব্য শুনে মনে হয়েছে তিনি নিজেই একজন বেসামাল, ভারসাম্যহীন ও কুরুচিপূর্ণ ব্যক্তি। তা না হলে গণতান্ত্রিক আন্দোলনে যে শহীদের নাম জনগণের হৃদয়ে গেঁথে আছে তাকে নিয়ে একটি দলের শীর্ষ নেতা এমন বক্তব্য দিতে পারেন না। তাকে অবশ্যই কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য প্রত্যাহার করে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।
আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেন, শহীদ নুর হোসেনকে নিয়ে মশিউর রহমান রাঙ্গা যে বক্তব্য দিয়েছেন, দেশবাসী চরম মর্মাহত হয়েছে। নুর হোসেন গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে একজন মাইলফলক যোদ্ধা। নুর হোসেনকে নিয়ে এমন বক্তব্য দিয়ে রাঙ্গা নিজের চরিত্রই দেশবাসীর সামনে উন্মোচন করেছেন।
শহীদ নুর হোসেনকে নিয়ে রাঙ্গার বক্তব্যের প্রতিবাদে সোমবার বিকেলে মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ এবং যুবলীগ বঙ্গবন্ধু এভিনিউ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে প্রতিবাদ মিছিল করেছে। অবিলম্বে রাঙ্গাকে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়েছে তারা। সম্পাদনা : কাজী নুসরাত




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]