• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » দুর্ঘটনার পর জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এ ফোন দেন উদয়ন ট্রেনে যাত্রী সজীব


দুর্ঘটনার পর জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এ ফোন দেন উদয়ন ট্রেনে যাত্রী সজীব

আমাদের নতুন সময় : 13/11/2019

 

সুজন কৈরী : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় তূর্ণা নিশীথা ও উদয়ন এক্সপ্রেসের সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনায় উদ্ধার কার্যক্রম চালায় পুলিশ। সেইসঙ্গে মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনায় পুলিশ গভীর শোক প্রকাশের পাশাপাাশি নিহতদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছে।
ঘটনার বিবরণ দিয়ে পুলিশ সদর দপ্তর জানিয়েছে, গতকাল মঙ্গলবার রাত ২টা ৫৮ মিনিটে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবার মন্দবাগ থেকে উদয়ন এক্সপ্রেসের সজীব নামের এক যাত্রী ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে ট্রেন দুর্ঘটনার বিষয়টি জানান। সজীব জানান, তিনি সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী উদয়ন এক্সপ্রেসের যাত্রী। মন্দবাগ স্টেশনে অন্য একটি ট্রেনের সঙ্গে তাদের ট্রেনের সংঘর্ষ হয়। এতে তাদের ট্রেনের অনেকগুলো বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। অনেক যাত্রী হতাহত হয়েছেন। তিনি দ্রুত তাদের উদ্ধারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অনুরোধ জানান। ৯৯৯ তাৎক্ষণিকভাবে সজীবকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ফায়ার সার্ভিসের সঙ্গে কথা বলিয়ে দেন। সেইসঙ্গে রেলওয়ে পুলিশ সদর দপ্তর কন্ট্রোল রুম, কসবা থানা পুলিশ এবং বিজিবি কন্ট্রোল রুমে দুর্ঘটনার সংবাদটি জানিয়ে উদ্ধার তৎপরতার শুরুর জন্য অনুরোধ জানানো হয়।
সংবাদ পেয়ে প্রথমে দুর্ঘটনাস্থলে দ্রুত ছুটে যায় কসবা থানা পুলিশের টহল দল। তারা স্থানীয়দের সহযোগিতায় হতাহতদের উদ্ধার করে বিভিন্ন যানবাহনে করে হাসপাতালে পাঠাতে শুরু করে। পরে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় আখাউড়া রেল পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও বিজিবি। তারাও উদ্ধার তৎপরতায় অংশ নেয়। এরপর সেনাবাহিনীর একটি দল এসে উদ্ধার তৎপরতায় অংশ নেয়। এ দুর্ঘটনার উদ্ধারকাজে সর্বাত্মক সহযোগিতার জন্য পুলিশ সদর দপ্তর বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছে। সেই নির্দেশনা অনুযায়ী ঘটনাস্থলে কর্মরত পুলিশ সদস্যরা অন্যান্য সংস্থা ও জনগণকে সঙ্গে নিয়ে উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে। সম্পাদনা : ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]