• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » সম্মতিতেই স্কুল শিক্ষিকাকে বিয়ে করেছেন সংবাদ সম্মেলনে উল্লাপাড়ার মেয়রের দাবি


সম্মতিতেই স্কুল শিক্ষিকাকে বিয়ে করেছেন সংবাদ সম্মেলনে উল্লাপাড়ার মেয়রের দাবি

আমাদের নতুন সময় : 13/11/2019

সোহাগ হাসান : সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া পৌরসভা মেয়র এস এম নজরুল ইসলাম বলেছেন, তিনি স্কুলশিক্ষিকা স্ত্রীকে জোর করে বিয়ে করেননি। উভয় পরিবারের সম্মতিতেই বিয়ে হয়েছে বলে প্রমাণাদি উপস্থাপন করেছেন তিনি। গত মঙ্গলবার স্থানীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তার বিরুদ্ধে গণমাধ্যমে প্রকাশিত জোর করে বিয়ের খবরটি মিথ্যা, অসত্য বলে জানান। সংবাদ সম্মেলনে মেয়র বলেন, আমার বিরুদ্ধে একটি স্থানীয় পত্রিকা ও ২/১টি অনলাইন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ করেছে, যা অসত্য। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বিয়ে সংক্রান্ত সব কাগজপত্র সাংবাদিকদের সামনে উপস্থাপন করেন।
মেয়র নজরুল ইসলাম বলেন, ইসলামিক শরীয়ত মোতাবেক আমার দ্বিতীয় বিয়েতে পান্নার বাবা মুক্তিযোদ্ধা গোলাপ হোসেন, মা জাকিয়া সুলতানা ও তার পরিবারের অনেক সদস্যসহ শহরের গণমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। ইতোমধ্যে প্রথম স্ত্রী জেসমিন জয়ারও দ্বিতীয় বিয়ে হয়ে গেছে বলেও জানান মেয়র। মেয়র এস.এম. নজরুল ইসলামের উপস্থাপিত কাগজপত্রের সূত্রে জানা যায়- তার প্রথম স্ত্রী জেসমিন জয়ার সঙ্গে ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের ১০ তারিখে তালাকের মাধ্যমে বিয়ে বিচ্ছেদ হয়। এরপর ২০১৮ সালের আগস্ট মাসের ১৮ তারিখে উভয় পরিবারের সম্মতি ও সিদ্ধান্তে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে গুলশান আরা পারভীন পান্নাকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন।
এর আগে বিগত ২০১৬ সালের ২৫ জুলাই গুলশান আরা পান্না তার উপর শারীরিক, নির্যাতনের অভিযোগে স্বামী রুমান সাইদ রাজনকে লিগ্যাল নোটিশ প্রদান করে এবং একই তারিখে তাদের দুজনের বিয়ে বিচ্ছেদ হয়। সম্পাদনা : মুরাদ হাসান, ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]