হত্যাকারীদের ফাঁসি চান আবরারের মা-বাবা

আমাদের নতুন সময় : 13/11/2019

আব্দুম মুনিব : বুয়েটের মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফায়াদ রাবিব হত্যাকা-ের ১ মাস ৭দিনের মাথায় আদালতে ২৫জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিটে দেয়ায় আপাতত খুশি পরিবারের সদস্যরা। তবে দ্রুত সময়ের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে বিচারকাজ শেষে খুনিদের ফাঁসি দেখতে চান আববারের মা, বাবা ও ভাইসহ পরিবারের সদস্যরা। একইসঙ্গে অবহেলার বিষয়ে বুয়েট কর্তৃপক্ষের নাম আসায় এখন থেকে তাদের সব শিক্ষার্থীদের বিষয়ে বিশেষ নজর দেয়ার আহবান তাদের। যাতে আর কোনো আবরারকে কখনো এই রকম পরিণতি ভোগ করতে না হয়।
গতকাল বুধবার আদালতে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ। এরপর কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই সড়কে আবরার ফায়াদের বাসায় গিয়ে চার্জশীট দাখিলের বিষয়ে কথা হলে তার মা রোকেয়া খাতুন বলেন, ‘পুলিশ কথা রেখেছে। তারা বলেছিল নিরপেক্ষভাবে দ্রুত সময়ের মধ্যে আদালতে চার্জশিট দাখিল করবে। তারা তাদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করেছে। এ জন্য তাদের ধন্যবাদ। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে আবরার ফায়াদের বিচারের দায়িত্ব নেন। সেই দায়িত্ববোধ থেকে তিনি নিজে বিষয়টি মনিটরিং করছেন। তাই তাকেও ধন্যবাদ।
আবারের মা আরো বলেন, বুয়েট কর্তৃপক্ষের অবহেলার বিষয়টি আমরা বলে আসছিলাম। পুলিশও তদন্তে সেটা প্রমান পেয়েছে। তাই এখন থেকে তাদেরও প্রতিটি শিক্ষার্থীর ব্যাপারে যতœবান হতে হবে। যাতে আর কোনো আবরারকে আমাদের হারাতে না হয়।
আবরারের ছোট ভাই আবরার ফায়াজ সাব্বির বলেন, পুলিশ তাদের কথা অনুযায়ী দ্রুত তদন্ত করে অভিযোগপত্র আদালতে দিয়েছে। ১৯জন থেকে এখন সব মিলিয়ে আসামি ২৫জন। তাই দ্রুত বিচার কাজ শুরু করতে হবে। যাতে সাজাও দ্রুত কার্যকর হয়। এ জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আমাদের দাবি ভাইয়ার মামলাটি যেন দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে করা হয়।
আবরার ফায়াদের বাবা বরকতুল্লাহ বলেন,‘ আমার ছেলে মারা যাবার পর সবাই দ্রুত আসামিদের গ্রেপ্তার ও অভিযোগপত্র দেয়ার দাবিতে মাঠে ছিল। প্রাথমিকভাবে আমরা পুলিশের কাজে খুশি। তারা তদন্ত করে ১৯জনের পরিবর্তে ২৫জনের সম্পৃক্ততা পেয়ে অভিযোগপত্র দিয়েছে। এখন দ্রুত শুনানি শেষে বিচার কাজ শুরু করতে হবে। আর চার্জশিটের কপি হাতে পেলে বিস্তারিত জানতে পারব। সম্পাদনা : মুরাদ হাসান, ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]