• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » আয়কর মেলার প্রথম দিনে গ্রামীণফোন ১৫০ কোটি ও ইসলামি ব্যাংক ১০০ কোটি টাকা কর দিলো


আয়কর মেলার প্রথম দিনে গ্রামীণফোন ১৫০ কোটি ও ইসলামি ব্যাংক ১০০ কোটি টাকা কর দিলো

আমাদের নতুন সময় : 14/11/2019

মেরাজ মেভিজ : সাধারণের পাশাপাশি উদ্বোধনী দিনেই আয়কর রিটার্ন দাখিল করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। পাশাপাশি বৃহৎ কর দাতা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে গ্রামীণফোন ও ইসলামি ব্যাংকের কর দাখিল হয়েছে মেলায়। সবমিলে জমা পড়েছে ৩২৩ কোটি ১৮ লাখ টাকা। এ সর্ম্পকে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, মেলায় সাধারণ করদাতাদের ব্যাপক সাড়ায় আমি মুগ্ধ। আশাকরছি মেলায় এবার আয়করের নতুন রেকর্ড হবে।

গতকাল রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে আয়োজিত সাত দিনব্যাপী (১৪ থেকে ২০ নভেম্বর) আয়কর মেলার উদ্বোধনে এসে আয়কর রিটার্ন দাখিল করে নিজের ৫৬০ টাকা থেকে পারিবারিক বিশাল আয়করের প্রসঙ্গ তুলে ধরেন অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, ১৯৭০ সালে প্রথম আয়কর প্রদান করি। তখন কর দিয়েছি ৫’শ ৬০ টাকা। আর আজ আমি, আমার স্ত্রী ও দুই মেয়ের মোট করের পরিমাণ ৭ কোটি ৬ লাখ ৭৮ হাজার টাকায় দাঁড়িয়েছে। ১৯৯৬-৯৭ সালে থেকে শেষ ২৪ বছরে আমি ৫১ কোটি ৭২ লাখ ৬৯ হাজার ৯৭৩ টাকা কর দিয়েছি। এখন আমার প্রকৃত সম্পদ ৬৮ কোটি ২২ লাখ টাকা। এ বছর আমার করযোগ্য আয়ের পরিমাণ ২ কোটি ৬৩ লাখ ৪৪ হাজার টাকা। আয়কর দিয়েছি ৯১ লাখ ৪৬ হাজার টাকা। আমার স্ত্রী কর দিয়েছেন ৭১ লাখ ২৯ হাজার টাকা। আমার বড় মেয়ে কর দিয়েছেন ২ কোটি ৮২ লাখ টাকা। আমার ছোট মেয়ের কর দিয়েছে ২ কোটি ৬১ লাখ টাকা। বর্তমানে আমাদের চারজনের মোট সম্পদের পরিমাণ ৩২১ কোটি ৬৫ লাখ টাকা। এদিকে প্রথম দিনে পিছিয়ে ছিল না দেশের বৃহৎ করদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোও। এ সর্ম্পকে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া আরো বলেন, ব্যাক্তি করদাতারা ছাড়াও কয়েকটি বড় প্রতিষ্ঠান আজ কর দাখিল করেছে। এর মধ্যে গ্রামীণফোন ১৫০ কোটি ও ইসলামি ব্যাংক ১০০ কোটি টাকার কর দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, এবার মেলার প্রতিপাদ্য সবাই মিলে দেব কর, দেশ হবে স্বনির্ভর। করসেবা প্রদান ও কর সচেতনতা বাড়াতে ২০১০ সাল থেকে আয়কর মেলার আয়োজন করে আসছে এনবিআর। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]