• প্রচ্ছদ » সাবলিড » নেপালের উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে সহযোগিতার আশ্বাস রাষ্ট্রপতির


নেপালের উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে সহযোগিতার আশ্বাস রাষ্ট্রপতির

আমাদের নতুন সময় : 14/11/2019


সমীরণ রায় : বুধবার কাঠমান্ডুতে নেপালের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও ক্ষমতাসীন নেপাল কমিউনিস্ট পার্টির কো-চেয়ারম্যান পুষ্প কমল দহল (প্রচ-) আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করলে এ বিষয়ে আলোচনা হয়। পরে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন বলেন, সাক্ষাতের সময় রাষ্ট্রপতি দু’দেশের মধ্যে সম্পর্ককে চমৎকার উল্লেখ করে গণতন্ত্রের পথে দেশটির অভিযাত্রার জন্য অভিনন্দন জানান। আবদুল হামিদ বলেন, বাংলাদেশও ভিশন ২০২১ এবং ২০৪১ গ্রহণ করেছে। এ ব্যাপারে দু’দেশই পারস্পরিক সহযোগিতার মধ্য দিয়ে লাভবান হতে পারে।
কাঠমান্ডুর ফেয়ারফিল্ড ম্যারিয়ট হোটেলে প্রচ- সাক্ষাৎ করতে আসলে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, বাংলাদেশ ও নেপাল বিভিন্ন সবসময় বিভিন্ন আন্তর্জাতিক বিষয়ে একই মনোভাব পোষণ করে এবং একে অপরকে সমর্থন করে। ভবিষ্যতে এ সম্পর্ক অব্যাহত থাকবে।
প্রেস সচিব জানান, সাক্ষাতের সময় প্রচ- বলেন, বাংলাদেশ ও নেপালের মধ্যে বিদ্যমান সম্পর্ক চমৎকার। এই দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক বহুপাক্ষিক পর্যায়ে উন্নীত করার যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে, বিশেষ করে বাণিজ্য-বিনিয়োগ সম্প্রসারণের মাধ্যমে এই সম্পর্ক কয়েকগুণ বাড়ানো যেতে পারে। এসময় সড়ক, রেল, আকাশপথে দু’দেশের মধ্যে যোগাযোগ বৃদ্ধির ওপর গুরুত্ব দেন।
পার্লামেন্টের উচ্চ কক্ষ ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির চেয়ারপার্সন গনেশ প্রসাদ তিমিলসিনা আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। পরে প্রেস সচিব জানান, রাষ্ট্রপতি বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে নেপালের জনগণ বিশেষ করে স্বাধীনতা সংগ্রামে ইতিবাচক ভূমিকা রেখেছে। বাংলাদেশ এবং নেপালের দূরত্ব খুবই কম। দু’দেশের জনগণের মধ্যে যোগাযোগ বাড়ানো উচিত। সাক্ষাতের সময় সংসদের হুইপ আতিউর রহমান আতিক, সংসদ সদস্য এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী, পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক, নেপালে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাশফি বিনতে শামস, রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এসএম শামীম উজ জামান উপস্থিত ছিলেন। সম্পাদনা : আসিফুজ্জামান পৃথিল




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]