শাহজালালের ৩য় ফেজের কাজ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

আমাদের নতুন সময় : 14/11/2019

লাইজুল ইসলাম : হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের সম্প্রসারিত প্রকল্পের প্রথম পর্যায়ের কাজ ডিসেম্বর মাসে প্রধানমন্ত্রী সময় দিলেই উদ্বোধন করা হবে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলি। তিনি বলেন, ডিসেম্বর বাংলাদেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ মাস। এই মাসেই প্রধানমন্ত্রী যদি উদ্বোধন করেন তাহলেই ভালো হয়। তিনি যেদিন সময় দিবেন সেদিনই উদ্বোধন করা হবে। এবছরের মধ্যেই শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাজ শুরু করতে আমরা আগ্রহী। প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিমানবন্দরটির কাজ শেষ হলে, বন্দর ব্যবস্থাপনায় দেশে নতুন অধ্যায়ের শুরু হবে। আধুনিক বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে শাহজালালের উন্নয়ন কাজ করা হচ্ছে। প্রতিবছরই যাত্রীর চাপ বাড়ছে বিমানবন্দরে। যাত্রী সেবার মান উন্নয়নে এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। থার্ড টার্মিনাল নির্মাণের জন্য ২০১৭ সালের ২৪ অক্টোবর অনুমোদন দেয় একনেক। ওই সময় নির্মাণ ব্যয় ধরা হয় ১৪ হাজার কোটি টাকা। কিন্তু সময়মতো প্রকল্পের কাজ শুরু করা যায়নি। প্রকল্পের কিছু বিষয় আদালত পর্যন্ত গড়ায়। এসব নিষ্পত্তি করে আরও প্রায় ৭ হাজার কোটি টাকা বাড়িয়ে প্রকল্পের নির্মাণ ব্যয় ধরা হয় ২০ হাজার কোটি টাকা। সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি প্রকল্প শুরু করার অনুমোদন দিলেও এই প্রকল্পটি আবার একনেকে অনুমোদন করাতে হবে। প্রকল্পের কিছু বিষয় পরিবর্তনের কারণে একনেকে যেতে হবে বলে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।
২০১৮ সালের প্রকল্পের দরপত্র স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। এরপর এক দফা সময় বাড়ানো শেষে ২২টি দরপত্র বিক্রি হয়। দরপত্র জমাদানের শেষ তারিখ গত ১৯ মার্চ মাত্র দু’টি দরপত্র জমা হয়। শিমিজু এবং এভিয়েশন ঢাকা কনসোর্টিয়াম এই দু’টি দরপত্র কেনে। এদের মধ্যে এভিয়েশন ঢাকা কনসোর্টিয়াম সর্বনিম্ন দরদাতা হয়। এই কনসোর্টিয়ামের মধ্যে রয়েছে মিতসুবিশি করপোরেশন, ফুজিটা করপোরেশন ও স্যামসাং। সম্পাদনা : ভিক্টর কে. রোজারিও




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]