• প্রচ্ছদ » সর্বশেষ » সরকারের ক্রয়কৃত ৬৭ একর জমির অংশ পেলে নতুন স্থানে মসজিদ নির্মানে রাজি ভারতের সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড


সরকারের ক্রয়কৃত ৬৭ একর জমির অংশ পেলে নতুন স্থানে মসজিদ নির্মানে রাজি ভারতের সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড

আমাদের নতুন সময় : 14/11/2019

আসিফুজ্জামান পৃথিল : বাবরি মসজিদের বিতর্কিত আড়াই একর জমি মন্দির তৈরীতে বরাদ্দ দিলেও মসজিদ নির্মানে আলাদা স্থানে ৫ একর জমি তৈরীর নির্দেশনা দিয়েছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। এই মামলার প্রধান বাদি ইকবাল আনসারি বলছেন, এই জমি নিতে তারা রাজি। কিন্তু জমি দিতে হবে সরকারের হুকুমদখলকৃত ৬৭ একর জমির মধ্যে। ১৯৯২ সাল থেকে বাবরি মসজিদ কমপ্লেক্সে এই জমি অধিগ্রহণ শুরু করে ভারত সরকার। এনডিটিভি
আনসারি এনডিটিভিকে বলেন, ‘যদি তারা আমাদের জমি দিতেই চায়, এটি হতে হবে, সুবিধাজনক স্থানে। এবং সেটি হতে হবে অধিগ্রহণ করা ৬৭ একর জমির মধ্যেই। আমরা তবেই তা গ্রহণ করবো। নাহলে আমরা সে প্রস্তাব প্রত্যাখান করবো। হিন্দুরা আমাদের ১৪ ক্রোশ দূরে গিয়ে মন্দির তৈরী করতে বলছে। এটি আমরা মেনে নেবো না।’ অবশ্য রায়ের পরেই আনসারি বলেছিলেন, তারা রিভিউ আবেদন করবেন। স্থানীয় ধর্মবেত্তা মাওলানা জালাল আশরাফ বলেছেন, মুসলিমদের নিজেদেরই ক্ষমতা আছে জমি কিনে মসজিদ নির্মানের। তাদের সরকারি দাক্ষিণ্যের প্রয়োজন নেই।
তিনি বলেন, ‘সরকার এবং আদালত আমাদের আবেগকে ব্যবহার করতে চায়। অধিগ্রহিত এলাকাতেই আমাদের ৫ একর জায়গা দিতে হবে। ১৮ শতকের সুফি সাধক কাজি কোয়াদাহ্সহ অনেক দরগাহ ও গোরস্থান এই এলাকায় আছে। অল ইন্ডিয়া মিল্লি কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক খলির আহমেদ খানও প্রায় অনুরূপ মন্তব্য করেছেন। আরেক ধর্মীয় নেতা হাজি মামবুব বলেন, ‘আমরা এই ললিপপ গ্রহণ করবো না। তারা আমাদের কোথায় জমি দিতে চায়, তা আগে পরিস্কার করতে হবে।’ সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]