• প্রচ্ছদ » » মাঝপথে নয়, গোধূলির সোনালী আভায় সামাজিক বৈধতায় বিয়ের নামে জীবনসঙ্গী খুঁজে নেয়া গুলতেকিনকে অভিবাদন


মাঝপথে নয়, গোধূলির সোনালী আভায় সামাজিক বৈধতায় বিয়ের নামে জীবনসঙ্গী খুঁজে নেয়া গুলতেকিনকে অভিবাদন

আমাদের নতুন সময় : 15/11/2019

অজয় দাশগুপ্ত

গুলতেকিন খান তার রুচি ও আভিজাত্য বোধের জন্য নন্দিত। হুমায়ূন আহমেদ তাকে ছেড়ে যাওয়ার পর তিনি মূলত নিজের ভেতর সংসারের ভেতরই গুটিয়েছিলেন। জনশ্রæতি এমন, হুমায়ূন আহমেদই বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিলেন। তার লেখায়ও আছে মেয়েরা ছেলে ও ভাইয়েরা সবাই ভাবির দলে। তার মৃত্যুর পর চারদিকে যখন শোক ও বিরহের মাতম তখনো গড়িয়ে পড়া দু’ফোঁটা চোখের জলে গুলতেকিন ছিলেন ব্যতিক্রমী ও নান্দনিক। যেসব মানুষ হুমায়ূনের বিয়ে নিয়ে শোরগোল করতেন, যারা এই কারণে তাকে পছন্দ করেন না তারা কি এখন বুঝতে পারবেন, বিয়ে একটি অধিকার। প্রাপ্তবয়স্ক দুজন মানুষ তাদের জীবন বিষয়ে কি সিদ্ধান্ত নেবেন সেটা তাদের ব্যাপার।
এই যেমন মনে করছি, বিয়ে যতোটা তার চেয়ে পরিণত বয়সে একজন জীবনসঙ্গী খুঁজে নিয়েছেন গুলতেকিন। মাঝপথে নয় গোধূলির সোনালী আভায় সামাজিক বৈধতায় বিয়ের নামে জীবনসঙ্গী খুঁজে নেয়া তাকে অভিবাদন। নীরবে অনেকেই এভাবে প্রতিবাদ করেন। উচ্চকিতরা যখন সোচ্চার তখন গুলতেকিনই পারেন নীরবতাকে রঙিন করতে। স্বীকারে লজ্জা নেই, অকারণে একটু খারাপও লাগছে বৈ কি। মনোহারিণী এমন কেউ কারও না হওয়া অবধি আমার আমার মনে হওয়াটা কি খুব দোষের? শুভ জীবন গুলতেকিন। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]