• প্রচ্ছদ » লিড ১ » চট্টগ্রামে গ্যাস লাইনে বিস্ফোরণ, মা-ছেলেসহ নিহত ৭


চট্টগ্রামে গ্যাস লাইনে বিস্ফোরণ, মা-ছেলেসহ নিহত ৭

আমাদের নতুন সময় : 18/11/2019

রাজু চৌধুরী, শহিদুল ইসলাম : চট্টগ্রামের পাথরঘাটায় গতকাল রোববার গ্যাস লাইনের রাইজার বিস্ফোরণে ভবনের দেয়াল ধসে শিশুসহ ৭ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ১৭ জন দগ্ধসহ আহত হয়েছেন অন্তত ২০ জন। নিহতদের মধ্যে দুই জন নারী, একজন শিশু ও ৪ জন পুরুষ রয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে কোতোয়ালি থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন জানান, সকাল পৌঁনে ৯টার দিকে পাথরঘাটা এলাকার ব্রিক

ফিল্ড রোডে অবস্থিত পাঁচতলা বড়ুয়া ভবনের সামনে গ্যাসের পাইপলাইন প্রচ- শব্দে বিস্ফোরিত হয়। এসময় ওই ভবনের দু’টি দেয়াল ধসে পড়ে। এতে ঘটনাস্থলেই সাতজন মারা যান। আহত হন আরও ১৫ জন। এ ঘটনায় নিকটস্থ ভবনের একটি দরজা ও গ্যারেজে থাকা একটি মাইক্রোবাসও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ও দমকলকর্মীরা উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করতে ঘটনাস্থলে যায়। আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়।
প্রাথমিকভাবে নিহতদের দাফন এবং যাতায়াত খরচ বাবদ ২০ হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে। পরবর্তী সময়ে ওই পরিবারগুলোকে আরও এক লাখ টাকা করে দেয়া হবে। চসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সুদীপ বসাক বলেন, আহতদের চিকিৎসার সমস্ত ব্যয় জেলা প্রশাসন ও সিটি করপোরেশন বহন করবে।

গ্যাসের পাইপলাইন বিস্ফোরণ ও দেয়াল ধসে ঘটনায় জেলা প্রশাসন পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জেলা প্রশাসক ইলিয়াস হোসেন বলেন, ঘটনাটি তদন্ত অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে প্রধান করে একটি কমিটি গঠিত হয়েছে। আগামী সাত দিনের মধ্যে কমিটিকে একটি তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কমিটিতে ফায়ার সার্ভিস, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিও রয়েছেন।
এদিকে, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ. জ. ম. নাসির উদ্দিনও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি হতাহতদের দেখতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান। এসময় মেয়র নিহতের পরিবারের সদস্যদের সান্তনা এবং আহত প্রত্যেকের খোঁজ খবর নেন। চসিকের পক্ষ থেকে আহতদের ওষুধ ও সর্বোচ্চ চিকিৎসার আশ্বাস প্রদান করেন তিনি।
এছাড়া, বিস্ফোরণস্থল পরিদর্শন করে সেখানে যে ভবনগুলো নির্মাণ করা হয়েছে তা যথাযথ আইন মেনে হয়নি বলে প্রাথমিক তদন্তে জানিয়েছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) একটি পরিদর্শন টিম। রোববার সকালে বিস্ফোরণের পর সিডিএর প্রধান পরিকল্পনাবিদ শাহীনুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি দল পাথরঘাটার বিস্ফোরণস্থল পরিদর্শন করে এরকম অভিমত দেন।
শাহীনুল ইসলাম বলেন, এখানে যে ভবনগুলো নির্মাণ করা হয়েছে তা যথাযথ আইন মেনে করা হয়নি। মূল জায়গা ছেড়ে আরও সামনের দিকে এসে রাস্তার ওপর ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া ভবনের সেপটিক ট্যাংকেও অনেক সময় গ্যাস জমে বিস্ফোরণ ঘটতে পারে। সেপটিক ট্যাংকের পাশে কিচেন ও গ্যাসের রাইজার রয়েছে। বিষয়গুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সম্পাদনা : মুরাদ হাসান, ওমর ফারুক ও রমাপ্রসাদ বাবু




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]