• প্রচ্ছদ » আমাদের বিশ্ব » বাগদাদি এখনো বেঁচে আছেন, সন্ত্রাসী নিয়োগে ডিপফেক প্রযুক্তি ব্যবহার করছেন, দাবি নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের


বাগদাদি এখনো বেঁচে আছেন, সন্ত্রাসী নিয়োগে ডিপফেক প্রযুক্তি ব্যবহার করছেন, দাবি নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের

আমাদের নতুন সময় : 18/11/2019


রাশিদ রিয়াজ : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প স্বয়ং ঘোষণা করেছেন আইএস সন্ত্রাসী নেতা আবু বকর আল-বাগদাদি মার্কিন বিশেষ বাহিনীর অভিযানে মারা গেছেন কিন্তু ডিপফেক প্রযুক্তি ব্যবহার করে বাগদাদি এখনো বহাল তবিয়তে সন্ত্রাসী নিয়োগ করছে বলে দাবি করেছেন নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ শামির আলিভাই। তিনি ভিডিও ফুটেজ যাচাই করে দেখেছেন ডিপফেক প্রযুক্তি ব্যবহার করে বাগদাদি ফের লোকবল সংগ্রহের চেষ্টা করছে। এবং তা যদি সত্যি হয় তাহলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের গোয়েন্দা সংস্থার বুদ্ধিমত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠবে এবং বাগদাদির মৃত্যুকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ঘোষণা নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হবে। বাগদাদির মৃত্যুর পর রাশিয়ার পক্ষ থেকে সন্দেহ প্রকাশ করে বলা হয়েছিল এমন দাবির পেছনে যথেষ্ট প্রমাণের অভাব দেখছেন রুশ গোয়েন্দারা। স্টার ইউকে।
এদিকে ভিডিও ভ্যারিফিকেশন কোম্পানির সিইও আম্বার বলছেন, আইএস জঙ্গিদের পক্ষ থেকে এও প্রমাণের চেষ্টা চলছে যে বাগদাদির মৃত্যু ঘোষণায় যুক্তরাষ্ট্রের দাবি মিথ্যা। আবার এও বলা হচ্ছে আইএস জঙ্গিদের মনোবলকে চাঙ্গা রাখতে বাগদাদির মৃত্যুকে মিথ্যা বলা হচ্ছে। অনবরত মিথ্যা ভিডিও তৈরি করা হচ্ছে এবং ২০২০ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বড় ধরনের অভিযানের প্রস্তুতি নিচ্ছে আইএস।
প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলছে ডিপফেক প্রযুক্তি সেলিব্রেটিদের নিয়ে মনগড়া অশ্লীল ভিডিও তৈরিতে ব্যবহার হয়ে থাকে। কিন্তু এধরনের প্রযুক্তি যুদ্ধের অপপ্রচার বা আইএস জঙ্গিদের কর্মতৎপরতা প্রচারে ব্যবহার করলে তার পরিণতি ভয়াবহ হয়ে উঠতে পারে। বাগদাদি মারা গেলেও তাকে ডিপফেক প্রযুক্তির সাহায্যে এমনভাবে জীবিত দেখানোর প্রচারণা চলছে যাতে তা বিশ^াসও হতে পারে। আর বাগদাদির মৃত্যু হয়নি এমন ধারণা মার্কিন নাগরিকদের মধ্যে বদ্ধমূল করতে পারলে এর বিরাট প্রভাব পড়বে দেশটির আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে। বিশেষ করে ট্রাম্পের ওপর যাদের আস্থা নেই বা যারা তার সমালোচনা করেন তারা খুব সহজেই বিশ^াস করতে পারেন বাগদাদি বেঁচে আছেন।
এদিকে মার্কিন মিডিয়া সিএনএন এক বিশেষ প্রতিবেদনে বাগদাদিকে ধরতে বিশেষ অভিযান কিভাবে পরিচালিত হয়েছে তার এক তথ্যচিত্র তুলে ধরে বলছে কিভাবে তাকে নিশ্চিতভাবে চিহ্নিত করা হয়েছিল। ইরাকের গোয়েন্দাদের এ কাছে সহায়তার কথাও স্বীকার করেছে মার্কিন মিডিয়া। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]