• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » লুইজিয়ানার গভর্নর নির্বাচনে রিপাবলিকান প্রার্থীকে ২০ হাজার ভোটে হারিয়ে জন বেল এডওয়ার্ডসের জয়


লুইজিয়ানার গভর্নর নির্বাচনে রিপাবলিকান প্রার্থীকে ২০ হাজার ভোটে হারিয়ে জন বেল এডওয়ার্ডসের জয়

আমাদের নতুন সময় : 18/11/2019


রাশিদ রিয়াজ : লুইজিয়ানা থেকে ডেমোক্রেটিক গভর্নর জন বেল এওয়ার্ডের এটি দ্বিতীয় বিজয়। যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণে ওই এলাকায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার সর্বোচ্চ চেষ্টা করলেও একমাত্র ডেমোক্রেটিক গভর্নর হিসেবে জন তার গণপ্রতিনিধি হিসেবে মর্যাদা অক্ষুণ রাখতে পেরেছেন। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে রিপাবলিক ধন্যাঢ্য ব্যবসায়ী প্রার্থী এডি রিসপনকে পরাজিত করেন তিনি। রিসপন ১৪ মিলিয়ন ডলার খরচ করেন এ নির্বাচনে। এমনিতে রিপাবলিকদের মধ্যে তারকা প্রার্থীর অভাব রয়েছে যথেষ্ট। তারপর এক মাসের নির্বাচনী প্রচারণায় জন বেল এডওয়ার্ডকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সকেও মোকাবেলা করতে হয়ছে। এই আসন থেকেই অতীতে রিপাবলিক সিনেটর জন কেনেডি ও এ্যাটর্নি জেনারেল জেফ ল্যান্ড্রি বিজয়ী হয়ে এসেছিলেন।
লুইজিয়ানায় নির্বাচনী প্রচারণার সময় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জন বেল এডওয়ার্ডকে হটিয়ে দিতে তিনবার সমাবেশে অংশ নেন। গত অক্টোবরের শুরুতে প্রথমে লেক চার্লস, এরপর মনরো এবং বোসিয়ার সিটিতে। কিন্তু জনের জনপ্রিয়তায় চিড় ধরাতে পারেননি মার্কিন প্রেসিডেন্ট। দি নিউজ স্টার ডটকম।
লুইজিয়ানার ভোটারদের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছিলেন, তার প্রার্থী রিসপনকে জিতিয়ে ওয়াশিংটনে দুর্নীতিগ্রস্ত (ট্রাম্পের ভাষায়) ডেমোক্রেটদের হটিয়ে দেয়া সম্ভব। তাই ট্রাম্প লুইজিয়ানাবাসীর কাছে তার প্রার্থীর পক্ষে ভোট চেয়ে নির্বাচনের দিন সকালেও টুইট বার্তায় একটি বড় বিজয় চেয়েছিলেন। ট্রাম্প রীতিমত গুড মর্নিং জানিয়ে ভোটারদের বাড়ি থেকে বের হয়ে তার প্রার্থীর পক্ষে ভোট দেয়ার আহবান জানান। কিন্তু ভোটাররা তাতে কান দেয়নি। বিজয়ীয় গভর্নর জন বেল এডওয়ার্ড বলেন, ভোটারদের নিজেদের এলাকার সমস্যাসহ বিভিন্ন ইস্যুকে বিবেচনায় এনেছেন, তাদের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কথায় কান দেয়ার সময় নেই আর ভোট কিভাবে দিতে হয় তাও শেখার প্রয়োজন নেই। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]