চট্টগ্রামে খালাসের অপেক্ষায় ৩২০ টন পেঁয়াজ, খাতুনগঞ্জে দাম আরও কমেছে আজ বিমানে আসছে ৩৫ টন পেঁয়াজ

আমাদের নতুন সময় : 19/11/2019

অনুজ দেব : ৩২০ মেট্রিক টন পেঁয়াজ খালাসের অপেক্ষায় রয়েছে চট্টগ্রাম বন্দরে। চীন ও মিশর থেকে গতকাল মঙ্গলবার এসব পেঁয়াজ এসেছে।
এর আগে রোববার ৪১৩ টন পেঁয়াজ এসেছিলো চীন, মিশর, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে। চট্টগ্রাম বন্দরে আসা পেঁয়াজের ডিও আড়তদারদের কাছে যাওয়ায় পেঁয়াজের দাম কমেছে।
চট্টগ্রাম সামুদ্রিক বন্দরের উদ্ভিদ সংগনিরোধ কর্তৃপক্ষের উপপরিচালক আসাদুজ্জামান বুলবুল জানান, চট্টগ্রাম বন্দরে মঙ্গলবার ৩২০ মেট্রিক টন পেঁয়াজ এসেছে। এরমধ্যে চীন থেকে ৮৭ মেট্রিক টন ও মিশর থেকে ২৩৩ মেট্রিক টন পেঁয়াজ এসেছে। তিনি জানান, গত ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে ১৯ নভেম্বর মঙ্গলবার পর্যন্ত ৬ হাজার আটশ ৭৮ মেট্রিক টন পেঁয়াজ চট্টগ্রাম বন্দরে এসেছে।
চট্টগ্রাম বন্দরে পেঁয়াজ এলেই খালাসের বিষয়টি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বিবেচনা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কাস্টমস কমিশনার ফখরুল আলম।
এদিকে, পর্যাপ্ত পরিমান পেঁয়াজ আসায় চট্টগ্রামের পাইকারি বাজারের খাতুনগঞ্জের পেঁয়াজের বাজারে দাম আরো একধাপ কমেছে। তারপরও ক্রেতা না থাকায় বিক্রি করতে পারছেন না পাইকাররা। তবে খুচরা বাজারে দাম এখনও চড়া। নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ইচ্ছেমতো দাম হাঁকাচ্ছেন খুচরা বিক্রেতারা।
খাতুনগঞ্জের আড়তদাররা জানিয়েছেন, গতকাল মঙ্গলবার খাতুনগঞ্জে মিয়ানমার থেকে আমদানি হওয়া পেঁয়াজ শ্রেণি ভেদে কেজি প্রতি ১২০ থেকে ১৩০ টাকায় বিক্রি করছেন।
একদিন আগে গত সোমবার সকাল থেকে বিকেলের মধ্যে তা ১৫০ থেকে ১৬০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। চীনের পেঁয়াজ মঙ্গলবার কেজিপ্রতি ৮০-৮৫ টাকা এবং তুরস্ক ও মিসরের পেঁয়াজ ৯০-৯৫ টাকায় বিক্রি হয়েছে। সোমবার এসব দেশের পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছিল ১৩০-১৪০ টাকায়। তবে পাইকারি বাজারে কমলেও নগরীর বিভিন্ন স্থানে খুচরায় এখনো ১৬০ থেকে ২০০ টাকা দরে মিয়ানমারের পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে।
খুচরা বিক্রেতারা জানান, তারা আগে বেশি দরে পেঁয়াজ কিনেছেন তাই দাম কম রাখা সম্ভব হচ্ছে না। তবে পাইকারিতে দাম কমায় খুচরায়ও এক-দুইদিনের মধ্যে দাম কমবে বলে তারা আশা করছেন।
খাতুনগঞ্জের পাইকারি আড়ত হামিদুল্লাহ মিঞা মার্কেট কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইদ্রিস জানান, মঙ্গলবার ৫-৬ গাড়ি মিয়ানমারের পেঁয়াজ এবং ৫-৬ গাড়ি তুরস্ক ও মিশরের পেঁয়াজ খাতুনগঞ্জে ঢুকেছে। সামনের দিকে আরো দাম কমবে।
এদিকে মঙ্গলবার দুপুর থেকে চট্টগ্রামে প্রথমবারের মতো খোলাবাজারে প্রতি ট্রাকে ১ টন করে ৬টি ট্রাকে কোতোয়ালি, বায়েজিদ, পাহাড়তলী, হালিশহর, বন্দর থানা ও দামপাড়া পুলিশ লাইন্সের ৬টি স্থানে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেছে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)।
টিসিবি কর্মকর্তা জামাল উদ্দিন আহমেদ জানান, কেজি প্রতি ৪৫ টাকায় প্রতি ট্রাকে ১ টন করে ৬টি ট্রাকে নগরের ৬টি পয়েন্টে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হয়েছে। একজন সর্বোচ্চ ১ কেজি পেঁয়াজ কিনতে পারবেন।
আজ কার্গো বিমানে করে ৩৫ টন পেঁয়াজ আসবে বলে গতকাল জানিয়েছেন বানিজ্য মন্ত্রী টিপু মুন্সী। তিনি বলেন, প্রতিদিন একটি করে কার্গো বিমানে করে পেঁয়াজ আসতে থাকতে। এতে করে পেঁয়াজের যে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে তা সমাধান হবে। প্রথম চালান আসছে মিসর থেকে। এটি নিয়ে আসছে এসআলম গ্রুপ। এছাড়া আরব আমিরাত, আফগানিস্তান থেকে টিসিবি ও অন্যান্য কয়েকটি কম্পানি পেঁয়াজ আমদানি করছে।
সম্পাদনা : মুরাদ হাসান, ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]