মৎস্যজীবী লীগের তৃণমূলে পুরনো নেতৃত্বে অনাস্থা

আমাদের নতুন সময় : 20/11/2019

সমীরণ রায় : আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের ৫ম জাতীয় সম্মেলন আগামী ২৯ নভেম্বর। সংগঠনটি ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সহযোগি সংগঠন হিসেবে না থাকলেও রাজপথে ছিলো সক্রিয়। সম্প্রতি আওয়ামী লীগ সহযোগি সংগঠন হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ায় নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে। একই সঙ্গে আগামী নেতৃত্ব কারা আসছেন তা নিয়ে চলছে চুলচেড়া বিশ্লেষণ। তবে পুরনো নেতৃত্বের প্রতি নেতা-কর্মীদের আস্থা নেই। সঙ্গত কারণে মৎস্যজীবী লীগের তৃনমূল নেতা-কর্মীদের মধ্যে পুরনো নেতৃত্বে নিয়ে অনাস্থা দেখা দিয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
জানা গেছে, আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় আগেই সম্মেলনের প্রস্তুতি নেয়া হয়। এ সংগঠনের সভাপতি ও সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক নারায়ন চন্দ্র চন্দ ও যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল বাশার। এই দুই নেতাকে নিয়ে রয়েছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। তাদের বিরুদ্ধে কমিটি বানিজ্য, বিএনপি-জামায়াত লোকদের পদ-পদবী দেয়াসহ বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকা-ের অভিযোগ রয়েছে। এমনকি গত ৪র্থ সম্মেলনে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী একটি পদ বাতিল করেছেন তারা। যে গঠনতন্ত্র বলে তাকে নারায়নকে সভাপতি নির্বাচিত করা হয়েছিলো, তা উপেক্ষা করে তার নিজের লোকদের পদ-পদবী দিয়েছেন। তিনি মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ প্রতিমন্ত্রী থাকাকালে নিজ বাসভনে ভাড়াটে মাস্তান দিয়ে সংগঠনের সিনিয়র নেতাদের শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করেন। এসব কারণেই আগামী সম্মেলনের নতুন কমিটিতে সভাপতি নারায়ন চন্দ্র চন্দ ও সধারণ সম্পাদক আবুল বাশারকে চান না সংগঠনের ত্যাগি তৃনমূল নেতা-কর্মীরা।
মৎস্যজীবী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম পলাশ বলেন, সংগঠনের সভাপতি ও সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক নারায়ন চন্দ্র চন্দের বিরুদ্ধে রয়েছে একাধিক অভিযোগ। তিনি সংগঠনের গঠনতন্ত্রের বাইরে গিয়ে টাকার বিনিময়ে পদ দেয়া, সিনিয়র নেতাদের লাঞ্চিতকরাসহ বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকা-ের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তাই আগামী কমিটিতে আমরা তাকে চাই না। সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]