ধর্মঘট প্রত্যাহারের পরও বিভিন্ন জেলায় বাস বন্ধ, দুর্ভোগ কমেনি

আমাদের নতুন সময় : 21/11/2019

 

মুরাদ হাসান : বুধবার রাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নেয় পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা। এরপরও গতকাল বৃহস্পতিবার কয়েকটি জেলায় বাস চলাচল বন্ধ ছিলো। এতে দুর্ভোগ আগের মতই থেকে যায় যাত্রীদের।
সাতক্ষীরা : বৃহস্পতিবার সকাল থেকে চলাচল বন্ধ রেখে ধর্মঘট পালন করে শ্রমিকরা। শহরের কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে কোন বাস ছেড়ে যায়নি। বন্ধ ছিল অভ্যন্তরীণ বাস চলাচল। প্রতিনিধি ফরিদ আহমেদ জানান, যাত্রীবাহী বাস বন্ধ থাকলেও বিআরটিসিসহ সীমিত সংখ্যক ট্রাক চলাচল করতে দেখা গেছে। এদিকে ধর্মঘটের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে ভোমরা স্থল বন্দরে। এর ফলে বিপাকে পড়েছেন বন্দরের ব্যবসায়ীরা। ট্রাক ঠিকমত না পাওয়ায় তাদের দ্বিগুণ খরচে পণ্য পরিবহন করতে হচ্ছে। বন্দর থেকে সীমিত সংখ্যক ট্রাক মালামাল নিয়ে বন্দর ছাড়ছেন বলে জানা গেছে। এর ফলে নষ্ট হচ্ছে পচনশীল দ্রব্য। কুড়িগ্রাম : গতকাল সকাল থেকে ট্রাক,লড়ী, কাভার্ডভ্যান শ্রমিকরা গাড়ি চলাচল শুরু করলেও এ জেলার আভ্যন্তরীণ বিভিন্ন রুটে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিনিধি অনিরুদ্ধ রেজা। জেলার ৯ উপজেলার জেলা সদরের বাস যোগাযোগ বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছে যাত্রী ও ব্যবসায়ীরা। জেলা মোটর মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. লুৎফর রহমান জানান, ট্রাক, ট্যাংকলড়ী, কাভার্ডভ্যান শ্রমিকরা তাদের ধর্মঘট প্রত্যাহার করলেও বাস শ্রমিকরা কেন ধর্মঘট অব্যহত রেখেছে আমরা মালিকরা তা জানি না। যশোর : বৃহস্পতিবারও যশোর অঞ্চলে কোনো রুটে বাস চলাচল করেনি। এতে জনসাধারণ চরম ভোগান্তির মধ্যে পড়ে। যশোর জেলা পরিবহন সংস্থা শ্রমিক সমিতির সভাপতি মামুনূর রশিদ বাচ্চু জানান, শ্রমিকরা স্বেচ্ছায় গাড়ি চালানো বন্ধ করে দিয়েছে। কেউ চাপ দেয়নি। শ্রমিক ইউনিয়ন বা ফেডারেশন কোনো কর্মসূচি দেয়নি। খুলনা : খুলনায় চতুর্থদিনের মত গতকালও বাস চলাচল বন্ধ ছিলো। তবে ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান চলাচল শুরু হয়েছে। খুলনা মোটরশ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন বলেন, নতুন সড়ক আইনের কিছু ধারায় মালিক ও চালকদের কঠোর শাস্তির কথা বলা হয়েছে। এ কারণে চালক ও মালিকরা ভয়ে গাড়ি বের করছেন না। সম্পাদনা : মুরাদ হাসান, ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]