• প্রচ্ছদ » সর্বশেষ » কার্গো পরিবহনে অতিরিক্ত চার্জে ৭৩ কোটি টাকা হারিয়েছে বিমান


কার্গো পরিবহনে অতিরিক্ত চার্জে ৭৩ কোটি টাকা হারিয়েছে বিমান

আমাদের নতুন সময় : 01/12/2019

লাইজুল ইসলাম : বিমানের বাড়তি ভাড়া ও শাহজালাল বিমানবন্দরের স্ক্যানিং ও গ্রাউড হ্যান্ডলিংয়ের অতিরিক্ত চার্জের কারণে বিদেশে বিমানে পণ্য রপ্তানিকারক কম্পানিগুলোকে হারাচ্ছে বাংলাদেশ বিমান। এতে আকাশপথে কার্গো বা পণ্য পরিবহনে বাংলাদেশ বিমান পিছিয়ে পড়ছে। কার্গো পরিবহন কমে যাওয়ায় জুলাই থেকে অক্টোবর পর্যন্ত চার মাসে বিমানের কার্গো পরিবহন কমেছে ৩ হাজার ২৩৬ টন। স্ক্যানিং ও গ্রাউড হ্যান্ডলিংয়েও এর প্রভাব পড়েছে। যার ফলে এই টাকা হারিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।
২০১৮ সালে বিমান কার্গো পরিবহন করেছে ৩৬ হাজার টন। এই সময় বিমান কার্গো পরিবহন ও হ্যান্ডলিং করে আয় করেছে ৬৯৬ কোটি টাকা। ২০১৮-১৯ ও ২০১৯-২০ সালের জুলাই থেকে অক্টোবর চার মাসের তুলনামূলক চিত্র দেখলেই বোঝা যায়, এই অর্থবছরে কার্গো পরিবহন ও হ্যান্ডলিংয়ে মোট কত টাকা আয় করেছে বিমান । ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ১৩ হাজার ৩২২ টন ২৭০ কোটি টাকা এবং ২০১৯-২০ অর্থবছরে ১০ হাজার ৮৬ টন ১৯৭ কোটি টাকা।
পণ্য রপ্তানির সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পার্শবর্তী রাষ্ট্র ভারতের চাইতে ৮ ইউএস ডলার বেশি খরচে বাংলাদেশ বিমানে পণ্য পরিবহন করতে হয়। বেশি চার্জের কারণে পার্শবর্তী দেশটি বিমানের বাজার ধরে ফেলছে বলেও মন্তব্য করেন তারা।
পণ্য রপ্তানির সাথে জড়িতরা বলেন, যেখানে বেশি সুবিধা সেখানেই আমরা যাবো। কম মূল্যে পণ্য রপ্তানি করতে কে না চায়। তাছাড়া পণ্যের দাম নির্ধারিত হয় পণ্যের পরিবহন খরচের ওপর। আগে শাহজালাল থেকেই পণ্য রপ্তানি হতো। কিন্তু এখন অতিরিক্ত চার্জের কারণে চট্টগ্রাম হয়ে কলম্বো বিমানবন্দর আর বেনাপোল হয়ে কলকাতা বিমানবন্দর দিয়ে কার্গো পরিবহন করা হয়।
বিমান এই ঘটনাকে অন্যের ওপর চাপিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে। তারা বলছেন প্রতিবেশী দেশের অসম বাণিজ্যিক প্রতিযোগিতার কারণেই এমনটা ঘটেছে। তবে বিমান সচিব মহিবুল হক বলেন, উন্নত মানের সেবা দিতে গিয়ে চার্জ কিছুটা বেশি পড়লেও সুযোগ সুবিধার কোন অভাব নেই। আন্তর্জাতিক মানের হওয়ায় চার্জ কিছুটা বেশি। আর ভাল কিছু পেতে গেলে চার্জতো বেশি হতেই পারে। সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী, খালিদ আহমেদ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]