• প্রচ্ছদ » সর্বশেষ » হলি আর্টিজান হামলা মামলার রায়ে মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আসামি রিগ্যান কারাগার থেকে আইএসের লোগো সম্বলিত টুপি নেয়নি


হলি আর্টিজান হামলা মামলার রায়ে মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আসামি রিগ্যান কারাগার থেকে আইএসের লোগো সম্বলিত টুপি নেয়নি

আমাদের নতুন সময় : 01/12/2019


সুজন কৈরী : হলি আর্টিজান হামলা মামলার রায়ে মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আসামি রাকিবুল হাসান রিগ্যান কারাগার থেকে আইএসের লোগো সম্বলিত টুপি নেয়নি। এ ঘটনায় কারা কারা কর্মকর্তাদেরও কোনো গাফিলতি নেই বলে জানিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষের গঠিত তদন্ত কমিটি। আজ রোববার কমিটি তদন্ত প্রতিবেদন ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দেবে। পরে তা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর কথা রয়েছে। গতকাল শনিবার তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত আইজি প্রিজন কর্ণেল মো. আবরার হোসেন বলেন, আমাদের কারাগারের কোনো গাফিলতি বা তল্লাশিতে কোনো ত্রুটি ছিলোনা। এজলাশে রায়ের পর কেউ একজন আসামিকে টুপিটি সরবরাহ করেছে। তিনি বলেন, টুপির বিষয়ে কারা কর্তৃপক্ষ তদন্ত কমিটি গঠন করে। কমিটির সদস্যরা কারাগারসহ সরেজমিনে তদন্ত ও সাক্ষাৎকার নিয়ে এ বিষয়টি বের করে। সমস্ত তথ্য-উপাত্ত ও ফুটেজ দেখে আমরা এমন সিদ্ধান্তে এসেছি যে, টুপিটি কারাগার থেকে কোনো অবস্থাতেই সংগৃহীত হয়নি। এছাড়া রায়ের দিন আমাদের আটজন বন্দিকে ম্যানুয়ালি ও বডি স্ক্যানার দিয়ে চেক করা হয়। এ সময় পরনে বস্ত্র ছাড়া আমরা কোনো কিছু অ্যালাও করি না। কারাগার থেকে আট জনকে বের করার সময় একজনের মাথায় সাদা রঙের টুপি পরা ছিলো। যা পরিধেয় বস্ত্র হিসেবেই ধরা হয়। আর বাকিদের মাথায় কোনো কিছু পরা ছিলো না।
এ কারা কর্মকর্তা বলেন, আইন অনুযায়ী আসামিদের কারাগার থেকে তল্লাশি করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এরপর পুলিশও তল্লাশির পর রেজিস্ট্রারে স¦াক্ষর করে আসামিদের বুঝে নেয়। কিন্তু ওই সময় কারো কাছে আইএসের লোগো সম্বলিত টুপি বা কালো রঙের টুপি দেখা যায়নি। পরে কারাগার থেকে আসামিদের নেয়া হয় এজলাসে। রায়ের পর টুপি পরে বের হয়ে প্রিজন ভ্যান পর্যন্ত আসে আসামিরা। ওই সময় আসামিদের একজন রিগ্যানের মাথায় আইএসের লোগো সম্বলিত টুপিটি দেখা যায়। এরপর আবারো আসামিদের কারাগারে পৌঁছানোর পর কারো মাথায় ওই টুপি দেখা যায়নি।
এদিকে গত বৃহস্পতিবার রাতে ডিএমপির তদন্ত কমিটির প্রধান ও যুগ্ম কমিশনার (ডিবি) মাহবুব আলম বলেন, রিগ্যান আইএসের লোগো সম্বলিত টুপিটি কারাগার থেকে পকেটে করে নিয়ে গিয়েছিলো বলে প্রাথমিক তদন্তে আমরা জানতে পেরেছি। সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]