• প্রচ্ছদ » সর্বশেষ » শিল্পায়নের হাত ধরেই দেশে কর্মসংস্থান বাড়বে, বললেন অর্থমন্ত্রী


শিল্পায়নের হাত ধরেই দেশে কর্মসংস্থান বাড়বে, বললেন অর্থমন্ত্রী

আমাদের নতুন সময় : 02/12/2019


সাইদ রিপন : গতকাল রাজধানীর শেরে বাংলা নগরের এনইসি কক্ষে তফসিলভুক্ত সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকের চেয়ারম্যান এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা শেষে সাংবাদিকদের আ হ ম মুস্তফা কামাল এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, কিন্তু নন পারফরমিং লোন কমানো গেলে প্রতিযোগীতামূলক ব্যবসায়ের পরিবেশ তৈরি হবে। ব্যাংক ঋণের সুদ হার কমিয়ে আনার ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এই কমিটি কী কারণে খেলাপি ঋণ ও সুদ হার বাড়ে, তার কারণ খুঁজে বের করবে। এছাড়া কী পদক্ষেপ নিলে খেলাপি ঋণ কমানো যাবে তার সুপারিশ দেবে। সরকারের সময়পযোগী সিদ্ধান্ত ও প্রধানমন্ত্রীর গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশের অর্জনগুলো দৃশ্যমান হচ্ছে। দেশের জনগণের কথা মাথায় রেখে বেকার সমস্যা দূরী করতে আরো বেশী ইন্ডাষ্ট্রিয়াল সেক্টরে নজর দিতে হবে।
অর্থমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে নতুন উদ্যোগে উৎপাদন খাতে গতিশীলতা বাড়াতে ব্যাংক ঋণের সুদ হার কমিয়ে এক অঙ্কে আনতে চেষ্টা করছে। একটি মামলার কারণে এতোদিন বিষয়টি আটকে ছিলো। কিন্তু বর্তমানে হাইকোর্টের মামলার রায়টি আমাদের পক্ষে এসেছে। এজন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন ডেপুটি গভর্নরের নেতৃত্বে একটি সাত সদস্যের কমিটি গঠন করেছি। এই কমিটি ঋণের সুদ হার এক অঙ্কে করতে করণীয় বিষয়ে আগামী সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিবে। একজন ডেপুটি গভর্নরের নেতৃত্বে কমিটিতে বেসকারি ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও সিইও’রা থাকবেন। সুপারিশগুলো বাস্তবায়ন করলে ৩১ ডিসেম্বরের পর থেকে খেলাপি ঋণ ও ব্যাংক ঋণের সুদ হার কমবে। আগামী বছরের পহেলা জানুয়ারি থেকেই কোর্টের রায় অনুযায়ী সুপারিশগুলো বাস্তবায়ন শুরু হবে।
তিনি বলেন, আমাদের অন্যতম চ্যালেঞ্জ নন-পারফরমিং লোন বা খেলাপি ঋণ। আমি বলেছিলাম ঋণ খেলাপি বাড়বে না, বরং সামনে ধীরে ধীরে খেলাপি ঋণের হার কমবে। কিন্তু তারপরেও খেলাপি ঋণ বাড়ছে এটা সত্য, কিন্তু কেন বাড়লো সেটা আমাদের জানা দরকার। এনপিএল বৃদ্ধির মূল কারণ সুদ হার। ১৪ থেকে ১৫ শতাংশ সুদহার হলে ঋণ গ্রহীতারা ঋণের সুদ দিয়ে পেরে উঠে না। তাই সুদহার ৯ শতাশেংর নিয়ে আসা অত্যন্ত জরুরী এবং আমরা সে চেষ্টাই করে যাচ্ছি। আমি আশা করি সুদহার ৯ শতাংশ হলে এনপিএল বাড়বে না। সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]