• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » সিনিয়র সহকারি সচিব থেকে পিয়নদের যানবাহন ক্রয়ে ঋণের টাকা বাড়ছে


সিনিয়র সহকারি সচিব থেকে পিয়নদের যানবাহন ক্রয়ে ঋণের টাকা বাড়ছে

আমাদের নতুন সময় : 02/12/2019

 

বিশেষ প্রতিনিধি : প্রশাসনের উপসচিব থেকে সিনিয়র সচিব সবাই গাড়ি কেনার ঋণ পাচ্ছেন। আর সিনিয়র সহকারি সচিব থেকে পিয়নদের যাতায়াতের জন্য গণপরিবহন সুবিধা রয়েছে। তবে এসব কর্মকর্তা কর্মচারিদের জন্যও মটরসাইকেল ও বাইসাইকেল কেনার ঋণ সুবিধা রয়েছে। কিন্তু যে টাকা ঋণ দেয়া হয় তা দিয়ে কোনটাই কেনা সম্ভব না। তাই এই ঋণও কেউ নিতেন না।
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় কর্মচারিদের ঋণ নিতে উৎসাহিত করার জন্য এই ঋণের পরিমাণ বৃদ্ধি করেছে। বর্তমানে মটরসাইকেল ও বাইসাইকেল কেনার জন্য যে পরিমাণ ঋণ নির্ধারণ করা হয়েছে তা দিয়ে মধ্যম মাণের মটরসাইকেল ও বাইসাইকেল কেনা সম্ভব হবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, আগের নিয়মে মটরসাইকেল জন্য ৩৫ হাজার টাকা এবং বাইসাইকেল জন্য ৩ হাজার টাকা ঋণ দেয়া হত। এই টাকায় বর্তমানে বাজার দর অনুসারে মটরসাইকেল বা বাইসাইকেল কোনটি কেনা সম্ভব হয় না। এ কারণে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত নেয় মটরসাইকেল কেনা জন্য ১ লাখ ২০ হাজার টাকা এবং বাইসাইকেল কেনার জন্য ১০ হাজার টাকা ঋণ দেয়া হবে।
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আলাউদ্দিন আলী বলেছেন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অগ্রিম ঋণ বরাদ্দ বিভাজন কমিটির গত আগস্ট মাসে অনুষ্ঠিত সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মটরসাইকেল কেনার ঋণ ১ লাখ ২০ হাজার টাকা এবং বাইসাইকেল কেনার ঋণ ১০ হাজার টাকা দেয়ার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। ওই সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়িই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
জানা গেছে, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বাজেটে বিশেষ কার্যক্রমের অধীন সরকারি কর্মচারীদের জন্য ঋণ খাতে মটরসাইকেলের জন্য ঋণ ৩৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা এবং বাইসাইকেলের জন্য ঋণ ৩ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ১০ হাজার টাকা বৃদ্ধিকরার প্রস্তাব জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ও সচিব অনুমোদন করেছেন।
সময় বাঁচানোসহ নানা কারণে এখন জনপ্রিয় বাহন হয়ে উঠেছে মোটর সাইকেল। প্রস্তুতকারক ও সরবরাহকারী কোম্পানি বিভিন্ন দাম ও ডিজাইনের মোটরসাইকেল আনছে বাজারে। অনেকে কাছে এখন বাইসাইকেলেরও কদর বেড়েছে। তাই সরকারও এই দুই খাতে ঋণের পরিমাণ বৃদ্ধি করেছে।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]