• প্রচ্ছদ » » ‘বাজে মন্তব্য’ঃ প্রশংসা ও সাজা


‘বাজে মন্তব্য’ঃ প্রশংসা ও সাজা

আমাদের নতুন সময় : 03/12/2019

মাসুদ কামাল

’বাজে মন্তব্য’র সাজা বেশ ভালোভাবেই পাচ্ছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রুশাদ ফরিদী। প্রায় আড়াই বছর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সিদ্ধান্ত নিয়ে তাকে পাঠিয়েছিল বাধ্যতামূলক ছুটিতে। প্রতিবাদে তিনি আদালতে গেছেন। পুরো দুই বছর আইনি লড়াই চলেছে। তারপর উচ্চ আদালত সিদ্ধান্ত দিয়েছেন- সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্তটি বৈধ ছিল না। সেই সঙ্গে আদালত ঢাবি কর্তৃপক্ষকে আদেশ দিলেন- যেন রুশাদ ফরিদীকে কাজে যোগদান করতে দেয়া হয়।
আদালত এমন আদেশ দিয়েছেন গত ২৫ আগস্ট। এরপর পার হয়ে গেছে তিন মাসেরও বেশি সময়। রুশাদ ফরিদীর এখনো সুযোগ হয়নি ক্লাসরুমে ঢোকার। অপেক্ষা করতে করতে ক্লান্ত হয়ে অবশেষে তিনি ”আমি শিক্ষক, আমাকে ক্লাসে ফিরে যেতে দিন” লেখা প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে দাঁড়িয়ে পড়লেন বিভাগীয় প্রধানের দরজার সামনে। এর পরও চারদিন পার হয়ে গেছে। কাজ হয়নি।
আচ্ছা, সহকর্মী অর্থাৎ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের নিয়ে কি ’বাজে মন্তব্য’ করেছিলেন এই শিক্ষক? এ বিষয়ে পরিষ্কার করে কিছু বলেনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তবে রুশাদ ফরিদীর কর্মকা- থেকে কিছুটা ধারণা করা যায়। একটি জাতীয় দৈনিকে তিনি লিখেছিলেন, ”বিশ্ববিদ্যালয়কে দ্রুত একাডেমিক শৃঙ্খলার মধ্যে ফিরিয়ে আনতে হবে। ডিন, উপাচার্য, সহ-উপাচার্য- এসব পদে নিয়োগ দিতে হবে সত্যিকারের মেধাবী ও যোগ্য অধ্যাপকদের। নয়তো আমাদের জাতীয় জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণার মানের তলানীর দিকে যাত্রা দিনে দিনে আরও ত্বরান্বিত হবে।”
এই কথাগুলোর মধ্যে ভুল কি কিছু আছে? আমরা বরং বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আচার্য রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের একটি বক্তব্যের দিকে তাকাতে পারি। গত শনিবার রাজশাহীতে তিনি বলেন, ”প্রশাসনের বিভিন্ন পদ-পদবি পাওয়ার লোভে শিক্ষকরা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রমে ঠিকমত অংশ নেন না, বরং বিভিন্ন লবিং নিয়ে ব্যস্ত থাকেন।”
মহামান্য রাষ্ট্রপতির সঙ্গে শিক্ষক রুশাদ ফরিদীর বক্তব্যের মধ্যে তেমন কিছু পার্থক্য কি আছে? এমন বক্তব্যের কারণে রাষ্ট্রপতি যদি প্রশংসিত হয়ে থাকেন, তাহলে রুশাদ ফরিদী কেন সাজা ভোগ করবেন? নাকি আচার্যের বক্তব্যকেও বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষমতাধর শিক্ষকরা বিবেচনা করবেন ’বাজে মন্তব্য’ হিসাবে?




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]