নতুন সড়ক আইনে কেস স্লিপে মামলাদেয়া শুরু করেছে ট্রাফিক পুলিশ

আমাদের নতুন সময় : 04/12/2019

 

সুজন কৈরী: গত শনিবার থেকে ডিএমপি ট্রাফিকের চারটি বিভাগ এ আইনের প্রয়োগ শুরু করেছে। মামলা দেয়ার পাশাপাশি কেউ যেনো হয়রানির শিকার না হয়, সেদিকেও খেয়াল রাখছে ট্রাফিক বিভাগ। ট্রাফিক সার্জেন্টরা পস মেশিন না পাওয়ায় প্রাথমিকভাবে কেস স্লিপ দিয়ে মামলা দেয়া হচ্ছে। মামলা দেয়া শুরু হলেও ঢাকার সড়কে লেন মানা হচ্ছেনা। প্রতিযোগিতা করে গণপরিবহন চালানোসহ সড়কের মাঝখানে যাত্রী ওঠা-নামাও বন্ধ হয়নি। সেইসঙ্গে যত্রতত্র রাস্তা পার হতে দেখা গেছে পথচারীদেরও।
বেশ কিছু সংযুক্তি, পরিবর্তন ও কঠিন শাস্তির বিধান রেখে গত ১ নভেম্বর কার্যকর হয় নতুন সড়ক পরিবহন আইন। এতে সড়কে আইন ভঙ্গে জরিমানা বেড়েছে ১০ থেকে হাজার গুণ। বেড়েছে কারাদ-ও। আগের আইনে লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালানোর জরিমানা ছিল ৫০০ টাকা। নতুন আইনে সর্বোচ্চ জরিমানা ২৫ হাজার টাকা। অন্যান্য অপরাধের ক্ষেত্রেও এভাবে জরিমানা বাড়ানো হয়েছে। গাড়ির আকার পরিবর্তন, সড়কে কাউকে আহত, নিহত করার মামলা জামিন অযোগ্য করা হয়েছে আইনে। তবে কার্যকরের সঙ্গে সঙ্গেই আইনের প্রয়োগ শুরু করেনি পুলিশ। চালক-হেলপার ও পথচারীদের মধ্যে সচেতনতামূলক কার্যক্রমসহ আইনের বিষয়ে প্রচারণা চালাচ্ছে । ডিএমপির উদ্যোগে চলছে ট্রাফিক সচেতনতা পক্ষ ২০১৯। ১৫ দিনব্যাপী এই সচেতনতা অনুষ্ঠান চলবে কাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত। তবে এর মধ্যেই উল্টো পথে চলাচল কারী, ড্রাইভিং লাইসেন্স ও গাড়ির কোনো কাগজ না থাকাসহ এমন কিছু আইন ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে নতুন সড়ক আইনে মামলা দিচ্ছে ট্রফিক পুলিশ।
গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর মহাখালী, গুলশান, বাড্ডা, রামপুরা, রিজয় সরণি, কারওয়ান বাজার, বাংলামোটর, ইন্টার কন্টিন্টোল মোড়সহ বিভিন্ন স্থান ঘুরে কিছু সড়কে ফুটওভারব্রিজ থাকলেও পথচারীরা তা ব্যবহার না করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সড়ক পার হচ্ছেন। গণপরিবহণগুলো সুশৃঙ্খলভাবে দাঁড়াচ্ছে না এবং সড়কের নির্দিষ্ট স্থানে যাত্রী ওঠা-নামাও করছে না। এতে সড়কে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। তবে আইন অমান্য বা ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে ট্রাফিক পুলিশের তৎপরতা দেখা যায়।
ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা বলছেন, নতুন সড়ক আইনের বিষয়ে চালক-পথচারী ও সাধারণ মানুষের মধ্যে আরো সচেতনতা প্রয়োজন। সচেতনতা না বাড়লে আইন দিয়ে কোনো কাজ হবে না। প্রতিদিনই ডিএমপির চারটি বিভাগের মধ্যে স্কুল-কলেজসহ কোথাও না কোথাও নতুন আইনের বিষয়ে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। সেইসঙ্গে আইন অমান্য করলে জরিমানার বিষয়েও জানানো হচ্ছে। সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]