• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » রাজধানীতে ৬২ হাজার স্বেচ্ছাসেবী তৈরি করার উদ্যোগ নেয়া হলেও অর্ধেকও হয়নি


রাজধানীতে ৬২ হাজার স্বেচ্ছাসেবী তৈরি করার উদ্যোগ নেয়া হলেও অর্ধেকও হয়নি

আমাদের নতুন সময় : 05/12/2019

 

দেবদুলাল মুন্না : আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবক দিবস আজ। যে কোনো দুর্যোগে মানবিক সহায়তা প্রদানে স্বেচ্ছাসেবকদের সচেতন ও দক্ষ করে তোলার লক্ষ্যে দিবসটি পালিত হয়। জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে ১৯৮৫ সালের ডিসেম্বর মাসের ১৭ তারিখ অনুষ্ঠিত অধিবেশনে প্রতি বছর পাঁচই ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী দিবস পালনের জন্য সরকারগুলোর প্রতি আহবান জানানো হয়। এরপর থেকে দিবসটি বাংলাদেশেও পালিত হয়ে আসছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে দিবসটি উপলক্ষ্যে সভা-সেমিনারসহ নানা কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে। বিভিন্ন সংগঠন কর্তৃক আয়োজিত অনুষ্ঠান ছাড়াও দিবসটি উপলক্ষ্যে ঢাকাস্থ জাতিসংঘ তথ্যকেন্দ্র, ঢাকাবাসী, হোপ ৮৭ এবং বাংলাদেশ ন্যাশনাল ফেডারেশন অব ইয়ুথ অর্গানাইজেশন শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছে।
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা নিয়ে কাজ করছে এমন একটি সরকারি প্রকল্প কমপ্রিহেনসিভ ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট প্রোগ্রামের পরিচালক মো. আব্দুল কাইউম বলেন, ‘তারা এই প্রকল্পের অধীনে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেটসহ নয়টি বড় শহরের বিভিন্ন ঝুঁকি নির্ণয় করেছেন।’ মো. কাইউম আরও বলেন, ঢাকায় সম্ভাব্য কোনো দুর্যোগ পরিস্থিতি সামাল দিতে স্বেচ্ছাসেবী তৈরি করা ছাড়া উপায় নেই। উদাহরণ হিসেবে তিনি রানা প্লাজা ধসের ঘটনা উল্লেখ করে বলেন ‘সেখানে স্বেচ্ছাসেবীরাই অনেক উদ্ধার কাজ করেছেন। স্বেচ্ছাসেবীর বিকল্প নেই।’
এদিকে সম্প্রতি বিশ্বব্যাংকের ঢাকা কার্যালয়ের লিড ইকোনমিস্ট ড. জাহিদ হোসেন বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘দেশে এমন অনেক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা রয়েছে যারা শতভাগ কাজ না করে প্রকল্প শেষ করে। এ ধরনের প্রকল্পে শতভাগ সুফল পাওয়া যায় না। আর অর্ধেকের কম কাজ হয়েছে, এমন প্রকল্প ব্যয় হওয়া অর্থ অপচয় ছাড়া কিছুই নয়। স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা না থাকায় এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।’
জানা গেছে ,এসব মনিটরিং করতেই সরকার দেশি-বিদেশি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার নিবন্ধন ও নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে নতুন আইন করেছে। আর নতুন আইনে এদেশে কর্মরত এনজিওগুলোকে নতুন করে নিবন্ধন নিতে হবে। কারণ প্রস্তাবিত স্বেচ্ছাসেবী সমাজকল্যাণ সংস্থা (নিবন্ধন ও নিয়ন্ত্রণ) আইনে যে কোনো স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা বা এনজিওকেই প্রতি পাঁচ বছর পর পর নিবন্ধন নবায়ন করার বিধান রাখা হয়েছে। সেক্ষেত্রে সরকার কার্যক্রমে সন্তুষ্ট না হলে নিবন্ধন বাতিল করতে পারবে। সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় স্বেচ্ছাসেবী সমাজকল্যাণ সংস্থাসমূহ (রেজিস্ট্রেশন ও নিয়ন্ত্রণ)অধ্যাদেশ, ১৯৬১-এর পরিবর্তে নতুন আইন করার উদ্যোগ নিয়েছে। সম্পাদনা : ভিক্টর কে. রোজারিও




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]