• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » এনকাউন্টার নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া, মিষ্টি বিতরণ নির্ভয়ার মা জানালেন তিনি অত্যন্ত খুশি, মমতা বললেন, আইন নিজের হাতে তুলে নেয়া যায়না


এনকাউন্টার নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া, মিষ্টি বিতরণ নির্ভয়ার মা জানালেন তিনি অত্যন্ত খুশি, মমতা বললেন, আইন নিজের হাতে তুলে নেয়া যায়না

আমাদের নতুন সময় : 07/12/2019

 

আসিফুজ্জামান পৃথিল : পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেছেন, নারীদের উপর কোনওরকম নির্যাতন তিনি সহ্য করেন না। কিন্তু এ ধরণের বিচারবহির্ভূত হত্যার প্রতিও তাদের কোন সমর্থন নেই। তিনি জানান, এ ধরণের ঘটনায় আইন নিজের হাতে তুলে নেয়া যায় না। পশ্চিমবঙ্গে এরকম কিছু হলে যেনো ১০ দিনের মধ্যেই পুলিশ চার্জশিট জমা দেয় সে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী কেজরীওয়ালও এ ঘটনার নিন্দা করেছেন। এসডিটিভি, বিবিসি, আনন্দবাজার।
সন্তোষ প্রকাশ করেছেন দিল্লিতে ২০১২ সালে আলোচিত ধর্ষণের শিকার নির্ভয়ার মা। তিনি বলেন, ‘আমরা ৭ বছর ধরে মৃত্যুযন্ত্রণা ভোগ করেছি। অন্যদের যেনো তা করতে না হয়। পুলিশ অসাধারণ কাজ করেছে। আমি অনেক খুশি।
এ ঘটনা শোনার পর নিজের স্বস্তি চেপে রাখতে পারেননি নির্যাতিতার বাবা। তার মতে, এই ঘটনার পর মেয়ের আত্মা শান্তি পেল। তিনি বলেন, ‘দশ দিন হলো আমার মেয়ে মারা গিয়েছে। পুলিশ এবং সরকারকে কৃতজ্ঞতা জানাই। মেয়ের আত্মা এখন অবশ্যই শান্তি পেয়েছে।’
তবে বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিজেপি এমপি মানেকা গান্ধী। তিনি বলেন, ‘যা হয়েছে তা এই দেশের জন্য ভয়ানক। চাইলেই যাকে খুশি এ ভাবে মারতে পারেন না আপনি। আইন হাতে তুলে নিতে পারেন না। আদালতে তো ওদের ফাঁসিই হতো।’
বিজেপি আরেক এমপি লকেট চট্টোপাধ্যায়ের মতে, ‘এতে মেয়েটির আত্মা শান্তি পেয়েছে। এত বড় ও জঘন্য ঘটনার পর ওরা পালানোর চেষ্টা করেছে। তাতে এনকাউন্টারে নিহত হয়েছে। আমি পুলিশকে ধন্যবাদ জানাই।’ ভারতের জাতীয় মহিলা কমিশনের প্রধান রেখা শর্মা বলেন ‘পুলিশের ভালো সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে এটা তো তদন্তাধীন বিষয়। বিচার ব্যবস্থার মাধ্যমে অপরাধীদের শাস্তি চেয়েছিলাম। তবে ঘটনার সময় যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুলিশ তা প্রশংসাযোগ্য।’ কেউ কেই বলছেন বিচার বহির্ভূত হত্যাকা-ের পর হওয়া উল্লাসের পিছনে রয়েছে বিচারব্যবস্থার প্রতি এক প্রকার অনাস্থার বহিঃপ্রকাশ। অপরাধের পর তা বিচারাধীন প্রক্রিয়াটি এতটাই দীর্ঘায়িত হয় যে বিচারব্যবস্থার প্রতিই আস্থা হারিয়ে ফেলেন অনেকে। সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, ‘বিচারব্যবস্থার বাইরে গিয়ে খুনের ঘটনা কখনও নারীদের সুরক্ষা প্রশ্নের সমাধান হতে পারে না।’ একই সুর শোনা গিয়েছে নির্বাসিত সাহিত্যিক তসলিমা নাসরিনের কথায়। তিনি বলেন, ‘অপরাধীদের মেরে ফেলাটা সোজা। তবে মানুষকে এমন ভাবে শিক্ষিত করা উচিত যাতে তারা কখনই অপরাধী হয়ে উঠবে না, এটা একেবারেই সোজা নয়। আমরা সোজা পন্থাটাই পছন্দ করি।’
কংগ্রেস এমপি শশী থারুরের মতে গোটা ঘটনাটি আরও স্পষ্ট হওয়া প্রয়োজন। তিনি বলেন, ‘নীতিগত ভাবে একে সমর্থন করছি। তবে বিষয়টি আরও জানা প্রয়োজন। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]