• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » তৎকালীন আওয়ামী আইনজীবীদের তাণ্ডব ক্ষমা পেলো কী করে ,মির্জা ফখরুলের প্রশ্ন


তৎকালীন আওয়ামী আইনজীবীদের তাণ্ডব ক্ষমা পেলো কী করে ,মির্জা ফখরুলের প্রশ্ন

আমাদের নতুন সময় : 08/12/2019

শিমুল মাহমুদ : শনিবার নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল আসলাম আলমগীর আওয়ামী লীগ নেতাদের উদ্দেশ্যে এ প্রশ্ন করেন ।
তিনি বলেন,২০০৬ সালের ৩০ নভেম্বর, তৎকালীন আওয়ামী আইনজীবীদের তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড প্রধান বিচারপতির এজলাস। এজলাসটাও বন্ধ ছিল। তিনদিন বিচারপতিরা কোর্টে আসেননি। আর এখন কি হুমকি দিচ্ছেন? আইনজীবীদের হট্টগোল ক্ষমার অযোগ্য। তাহলে আপনাদের ওই সমস্ত তাণ্ডব ক্ষমা পেলো কি করে? অতীতের সেই কথাগুলো তাদের মনে করিয়ে দেয়া দরকার। সেজন্য মনে করিয়ে দিলাম।
তিনি বলেন, আপিল বিভাগে আমাদের নেত্রীর জামিন শুনানির পর, দখলদারী মন্ত্রিসভার সদস্যরা এমন বক্তব্য দিচ্ছেন যে, সেদিন যারা বিএনপির চেয়ারপারসনের মুক্তির জন্যে দাঁড়িয়েছিলেন তারা মহাঅপরাধ করে ফেলেছেন। তারা এসব কথা বলার আগে নিজেদের পেছন দিকে একবার দেখার কী চেষ্টা করেছেন? একবার কি মনে করেছেন তারা অতীতে কি করেছিলেন? আমাদের আইনজীবীরাতো একটাও খারাপ কাজ করেনি। তারা নিজেদের জায়গায় বসে থেকে দাবির কথা বলেছেন। আবেদন করেছেন ন্যায় বিচার চাই-সুষ্ঠু বিচার চাই।
সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল তার পাশে বসা বিএনপি নেতা মীর সরাফত আলী সপুর মোবাইল ফোনের কিছু ছবি সাংবাদিকদের দেখিয়ে বলেন, তারা ২০০৬ সালের ৩০ নভেম্বর আদালতে লাঠি মিছিল করেছেন। তখনকার আইন প্রতিমন্ত্রী, শাহজাহান ওমর বীর উত্তমের গাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছিল আদালত চত্বরে। প্রধান বিচারপতির কক্ষ ভাঙচুর করা হয়েছে। এ ঘটনায় যাদের ছবি এসেছে তারা পরবর্তীকালে অনেকে বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন। এখনও বিচারপতি আছেন। এটা আপনাদের সবার জানার কথা। কিন্তু কী দুর্ভাগ্য আজকে মিডিয়াগুলো এটা লিখতে পারবে না। তাদের সেই স্বাধীনতা নেই। মিডিয়ার অবস্থা এমন হয়েছে যে সরকারকে বলতে হয় না। তারা সেলফ সেন্সরশীপ করে। কারণ তাদের টিকে থাকতে হয়। তারা সত্য কথাটা বলতে পারে না, লিখতে পারে না।
দেশে আইনের শাসন নেই দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, খালেদা জিয়ার জামিন নিয়ে তারা যে জঘন্য একটা নাটক করছেন এই নাটক বাদ দিয়ে দয়া করে একজন দেশপ্রেমিক নেতাকে জামিনে মুক্ত করুন। তাকে বেঁচে থাকার জন্য চিকিৎসা নেয়ার সুযোগ করে দেন। অন্যথায় এদেশের মানুষ কোনো দিনই আপনাদের ক্ষমা করবে না। তখন আপনারাই ক্ষমার অযোগ্য হবেন। সেই সময় আসার আগে দয়া করে অতি দ্রুত দেয়ালের লিখনগুলো পড়ুন। সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : inf[email protected]