• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » অনৈতিক কর্মকা-ে জড়িতদের তালিকা প্রধানমন্ত্রীর হাতে,সভাপতিম-লীসহ অনেক পদে আসছে পরিবর্তন


অনৈতিক কর্মকা-ে জড়িতদের তালিকা প্রধানমন্ত্রীর হাতে,সভাপতিম-লীসহ অনেক পদে আসছে পরিবর্তন

আমাদের নতুন সময় : 09/12/2019

সমীরণ রায় : আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় ত্রি-বার্ষিকী সম্মেলন আগামী ২০-২১ ডিসেম্বর। সঙ্গত কারণে রাজনীতিতে আলোচনার শীর্ষে ক্ষমতাসীন দলের সম্মেলন। দলটির সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিকল্প যেহেতু কেউ নেই, তাই তিনিই আগামীতে দলীয় প্রধান হিসেবে থাকছেন। এখন প্রশ্ন উঠেছে সাধারণ সম্পাদক পদে কোনো পরিবর্তন আসছে কী না? তবে দলটির একাধিক সিনিয়র নেতা বলছেন, সাধারণ সম্পাদক পদে পরিবর্তন আসতে পারে। তবে এটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এখতিয়ার। অপরদিকে, ৮১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির কে কে বাদ যাচ্ছেন? কারা থাকছেন, তা নিয়ে আলোচনার শেষ নেই। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত দলটির বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের কেন্দ্রীয় ও ধানম-ির সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে পদ-প্রত্যাশী নেতাকর্মীদের আনা-গোনাও বেড়েছে। সেখানেও একই আলোচনা নতুন কারা আসছেন, আর কারা বাদ যাচ্ছেন? তবে একাধিক সূত্র জানিয়েছে, অনেক সিনিয়র নেতাই দল থেকে ছিটকে পড়বেন। এছাড়া মন্ত্রী রয়েছেন, এমন নেতাদের বেশিরভাগ দলীয় কোনো পদে থাকছেন না। কারণ একজনকে মন্ত্রী ও দলীয় পদে না রাখার পক্ষে রয়েছেন শেখ হাসিনা। ইতোমধ্যে সরকারি-বেসরকারি গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্ট প্রধানমন্ত্রীর হাতে রয়েছে। ওই রিপোর্টের ভিত্তিতে একটি তালিকা করেছেন তিনি। অর্থাৎ যারা ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকা-ের সঙ্গে জড়িত তারা আগামী কমিটিতে থাকছেন না। তবে গঠনতন্ত্রে পরিবর্তন আসছে কি না তা নিয়ে কেউ কথা বলতে রাজি হননি।
জানা গেছে, জাতীয় সম্মেলনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতিম-লী থেকে শুরু করে সম্পাদকম-লী, কার্যনির্বাহী সদস্য প্রতিটি পর্যায়েই যারা অনৈতিক কর্মকা-ের সঙ্গে জড়িত তারা বাদ পড়ার তালিকায় রয়েছেন। এর মধ্যে মন্ত্রিসভার সদস্য এমন নেতারাও আছেন। প্রতি সম্মেলনেই কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে পরিববর্তন আসছে। এই পরিবর্তনের বা বাদ পড়া জায়গাগুলোতে তরুণ ও নতুনরা গুরুত্ব পাবেন। ছাত্রলীগ থেকে উঠে আসা নেতা, বিশেষ করে যারা সংগঠনটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক বা শীর্ষ পর্যায়ের নেতৃত্বে ছিলেন এবং বর্তমানে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে ভূমিকা রাখছেন, তাদের একটি অংশ স্থান পাবেন।
আওয়ামী লীগের সভাপতি ম-লীর সদস্য কাজী জাফরউল্ল্যাহ বলেন, উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগের সম্মেলন হবে। সম্মেলনের মধ্য দিয়ে নবীন-প্রবীনের সমন্বয়েই আসছে আগামী নেতৃত্ব। তবে সাধারণ সম্পাদক পদটিতেও আসতে পারে পরিবর্তন। কারণ ইতোমধ্যে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, একমাত্র প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতির পদ ছাড়া, যেকোনো পদেই পরবির্তন আসবে। সম্মেলনের মধ্য দিয়ে গঠনতন্ত্রে কোনো পরিবর্তন না আসার সম্ভাবনা বেশি রয়েছে।
আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর বলেন, নবীন-প্রবীনদের নিয়েই আগামী কমিটি হচ্ছে। তবে যারা সাবেক ছাত্র নেতা তাদেরকে বেশি প্রাধান্য দেয়া হতে পারে। তিনি বলেন, গঠনতন্ত্রে কোনো পরিবর্তন আসবে বলে এখনও কোনো কিছু আমি জানি না। তবে পরিবর্তন করারও তেমন কিছু নেই। সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]